২০ ফুট দূরত্বে থাকা যে কোন সুস্থ লোক করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন

236

বদ্ধ জায়গায় বা ঘরে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত কোন ব্যক্তির দ্বারা ২০ ফুট দূরত্বে থাকা যে কোন সুস্থ লোক করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন বলে দক্ষিণ কোরিয়ার এক গবেষণায় উঠে এসেছে। দক্ষিণ কোরিয়ার মহামারি বিশেষজ্ঞ ড. লি জু-হিয়ুং এবং তাঁর সহকর্মীদের পরিচালিত ওই গবেষণায় দেখা গেছে দেশটির জিওনজু শহরের একটি বদ্ধ রেস্তোরাঁয় খাবার খেতে শহরের বাইরে থেকে আসা করোনা সংক্রমিত এক ব্যক্তির কারনে ২০ ফুট দূরত্বে থাকা এক জন শিক্ষার্থী ছাড়াও ওই সময়ে সেখানে উপস্থিত অনেকেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। গবেষণার ফলাফলে বলা হয়েছে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে বিশ্বজুড়ে ছয় ফুট দূরত্ব বজায়ের যে নীতি চালু রয়েছে, তা হয়তো সংক্রমণ রোধের জন্য যথেষ্ট নয়। দক্ষিণ কোরিয়ার এই পরীক্ষার ফলাফলের সঙ্গে গত জুলাইয়ে চীনে করা একটি অনুরূপ পরীক্ষার ফলাফলের মিল পাওয়া যায়। চীনের একটি রেস্তোরাঁয় খাবার খেতে গিয়ে তিনটি পরিবারের সদস্যরা আক্রান্ত হয়েছিলেন।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের ডিউক বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সমীক্ষায় বলা হয়েছে ভ্যাকসিন প্রাপ্তির ক্ষেত্রে উন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে বৈষম্যের সৃষ্টি হয়েছে। বেশি আয়ের দেশগুলো একদিকে যেমন যতটা সম্ভব বেশি পরিমাণে ভ্যাকসিন কিনে রাখছে বলে উল্লেখ করে সমিক্ষায় বলা হয় অন্যদিকে উন্নয়নশীল ও গরিব দেশের মানুষের জন্যে যথেষ্ট পরিমাণ ভ্যাকসিনের জোগান নাই। অগ্রিম ভ্যাকসিন ক্রয়ের ক্ষেত্রে বিশ্বে সবার উপরে রয়েছে কানাডা এবং সবার নিচে অবস্থান করছে ফিলিপাইন। করোনা ভ্যাকসিন বাজারে এলে প্রাথমিক ভাবে বাংলাদেশের নয় শতাংশ মানুষ তা পেতে পারেন বলে সমীক্ষায় উল্লেখ করা হয়েছে। বাংলাদেশের স্বাস্থ্য বিভাগ শুক্রবার জানিয়েছে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মারা গেছেন ১৯ জন করোনা রোগী এবং নতুন ভাবে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন অপর ১৮৮৪ জন।