টিকা কারা নেবেন, কারা নেবেন না

198

করোনাভাইরাসের টিকা নেওয়ার পর কী ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে, তা জানতে চান সবাই। কারা টিকা নেবেন আর কারা নেবেন না, এমন প্রশ্নও রয়েছে মানুষের মনে। যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল (সিডিসি) এ নিয়ে নির্দেশনা দিয়েছে।

সিডিসি স্থানীয় সময় গতকাল শনিবার জানিয়েছে, অ্যালার্জি আছে—এমন লোকজনও টিকা নিতে পারবেন। তবে টিকার কোনো উপাদান নিয়ে আগে যদি কারও অ্যালার্জি হয়ে থাকে, তাহলে তাঁরা চট করে টিকা নিতে পারবেন না। সে ক্ষেত্রে আরও কিছু পরীক্ষা করতে হবে।

সিডিসি তাদের ওয়েব পেজে বলছে, খাবার, পরিবেশসহ নানা বিষয়ে যাঁদের অ্যালার্জি আছে, তাঁরা করোনার টিকা নিতে পারবেন। যাঁদের মুখে নেওয়া ওষুধে অ্যালার্জি অথবা অন্য কোনো টিকায় হালকা বা মাঝারি অ্যালার্জি হয়েছে, তাঁরাও টিকা নিতে পারবেন।

তবে যাঁদের অন্য কোনো টিকায় অনেক বেশি অ্যালার্জি বা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়েছে, তাঁদের টিকা নেওয়ার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে বলা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে ২ লাখ ৭২ হাজার জনকে টিকা দেওয়ার পর মাত্র ছয়জনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া পাওয়া গেছে। টিকা দেওয়ার পর গ্রহীতাকে আধা ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। এ সময়েই তাঁদের মধ্যে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। আলাস্কা অঙ্গরাজ্যের একটি হাসপাতালে টিকা দেওয়ার পর দুজন স্বাস্থ্যকর্মীর শরীরে ১০ মিনিটের মধ্যে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সব জায়গায় স্বাস্থ্যকর্মীসহ সামনের সারির কর্মীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে। প্রতিটি রাজ্যের হোমকেয়ারে থাকা বয়স্ক লোকজন এবং ঝুঁকিপূর্ণ লোকজনকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা দেওয়া হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ অ্যান্থনি ফাউসি বলেছেন, ফাইজার ও মডার্নার টিকা আসার পর তিনি আশার আলো দেখছেন। আগামী তিন মাস আমেরিকায় করোনা পরিস্থিতি নাজুক থাকবে। বড়দিনের সময় সংক্রমণ আরও বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। আসছে বসন্তের পর থেকে ধীরে ধীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে বলে মনে করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।