মঙ্গল গ্রহে অভিযানের ভিডিও প্রকাশ নাসার

76

মঙ্গল গ্রহে অতীতে প্রাণের অস্তিত্ব ছিল কি না, তার অনুসন্ধান করতে গত সপ্তাহে নাসার মহাকাশযান পারসিভেয়ারেন্স-এর রোবট সফলভাবে মঙ্গল গ্রহের বুকে নামে। মঙ্গল গ্রহে নামার সেই দৃশ্যের প্রথম ভিডিও সোমবার প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা।

মঙ্গল গ্রহ থেকে পাঠানো ভিডিওটি উচ্চমানের। এটি ৩ মিনিট ২৫ সেকেন্ডের ভিডিও। ২১ দশমিক ৫ মিটার প্রস্থ লাল ও সাদা রঙের প্যারাসুটের সাহায্যে নাসার রোভারটির মঙ্গলপৃষ্ঠে নামার দৃশ্য ধরা পড়েছে ওই ভিডিওতে। রোভারের ভেতরে লাগানো ক্যামেরার সাহায্যে ভিডিওটি ধারণ করা হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা গেছে, মঙ্গলের বায়ুমণ্ডলে প্রবেশের সময় পারসিভেয়ারেন্সকে সুরক্ষা দিতে তাপ প্রতিরোধক ঢাল ব্যবহার করা হয়। বায়ুমণ্ডলের সুরক্ষিত পর্যায়ে পৌঁছানোর পর রোভারটি থেকে ঢালটি আলাদা হয়ে পড়ে যায় এবং রোভারটি লাল গ্রহের বিষুবরেখার কিছুটা উত্তরে জেজারো খাদের ধুলা-আচ্ছন্ন এলাকায় অবতরণ করে

ছয় চাকার এই রোবটযান আগামী দবছর মঙ্গল গ্রহ থেকে নমুনা সংগ্রহের কাজ করবে। প্রাচীন হ্রদ এলাকার মাটিপাথরের মধ্যে খনন চালিয়ে এটি অতীত অণুজীবের অস্তিত্ব সন্ধানের কাজ করবে।

ধারণা করা হয়, জেজারোয় কয়েকশ’ কোটি বছর আগে বিশাল একটি হ্রদ ছিল। সেই হ্রদে ছিল প্রচুর পানি এবং খুব সম্ভবত সেখানে প্রাণের অস্তিত্বও ছিল।

পারসিভেয়ারেন্সের রোবটযানটি প্রথম যে দুটি ছবি পৃথিবীতে পাঠিয়েছে, সে দুটি তোলা হয়েছে দুর্বল শক্তির প্রকৌশলী ক্যামেরা দিয়ে। ক্যামেরার লেন্সে ধুলার আস্তরণের মধ্যে দিয়ে পারসিভেয়ারেন্সর রোভার অর্থাৎ ওই রোবটযানের সামনে ও পেছনে সমতল ক্ষেত্র দেখা যাচ্ছে।

নাসার বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, রোবটযানটি জেজারোর ব-দ্বীপের মতো চেহারার একটি অংশের দুই কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে অবতরণ করেছে। এই এলাকাতেই পারসিভেয়ারেন্স তার সন্ধান কাজ চালাবে।

সূত্র: সিবিএস নিউজ, এএফপি ও বিসিসি।