বিশ্বাস ফেরাতে ২৪ ঘণ্টা হাতকড়া!

33

সন্দেহের সংসারে বিশ্বাস ফেরাতে এবং নিজেদের ভালোবাসা সারাজীবন অক্ষুণ্ন রাখতে ২৪ ঘণ্টাই তারা একই হাতকড়ায় আবদ্ধ থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এ কারণে এই দম্পতি খাওয়া-দাওয়া থেকে শুরু করে দৈনন্দিন যাবতীয় কাজগুলো একই সঙ্গে করে যাচ্ছেন। এভাবেই জীবনযাপন করছেন ইউক্রেনের এই দম্পতি!

গাড়ি বিক্রেতা ৩৩ বছরের আলেকজান্ডার কুডলে এবং ২৮ বছরের বিউটিশিয়ান ভিক্টোরিয়া পুসটোভিটোভার হাতকড়া পরা অবস্থায় করা নানা কাজের সেসব ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।ওদের সম্পর্ক বারবারই ভেঙে যাচ্ছিল।

তিন মাস আগেও ওরা সম্পর্ক ভেঙে বেরিয়ে আসতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সংসার ভেঙে যাক সেটা চাননি আলেকজান্ডার। আর যার কারণেই সম্পর্কের ভিত আরও মজবুত করতে চলতি বছরের ভ্যালেন্টাইন্স ডে-তে নিজেদেরকে হাতকড়ায় আবদ্ধ করেন ওই দম্পতি।

ভিক্টোরিয়া নিজের দুর্বলতার কথা স্বীকার করে বলেন, আলেকজান্ডারের সঙ্গে সম্পর্ক ভেঙে তিনি বেরিয়ে আসতে চেয়েছিলেন বহুবার। কিন্তু তার সঙ্গী সেটা চাননি। কিন্তু সেটা কীভাবে সম্ভব?

এ নিয়ে দুজনই বিভিন্নভাবে পরিকল্পনা সাজাচ্ছিলেন। কোনো পদ্ধতিই কাজে আসছিল না। শেষমেশ দুজনের মধ্যে সম্পর্ক আরও গভীর করতে, মজবুত করতে হলে সবসময় একসঙ্গে থাকতে হবে বলে তারা উপলব্ধি করেন। থাকার সিদ্ধান্তও নেন তারা। বুদ্ধি পেয়ে গেলেন ভিক্টোরিয়াই।

দুজন হাতকড়ায় আবদ্ধ থাকলে সম্পর্ক আর ভাঙবে না। আলেকজান্ডারও এ সিদ্ধান্তে দারুণ খুশি। এরপর নিজেদের প্রেমকাহিনীতে টুইস্ট আনার জন্য হঠাৎই একদিন তারা নিজেদেরকে একসঙ্গে হাতকড়ায় আবদ্ধ করে ফেললেন। এরপর থেকে এভাবেই চলছে তাদের জীবনের গতিপথ।

কিন্তু এভাবে থাকতে অসুবিধা হয় না? এমন প্রশ্নের উত্তরে আলেকজান্ডার বলেন, ‘প্রথম প্রথম একটু অসুবিধা হলেও এখন আর হয় না। পুরো ব্যাপারটি মানিয়ে নিয়েছি আমরা। এখন সকালে ঘুম থেকে ওঠা থেকে শুরু করে বাজার, খাওয়া-দাওয়া, ঘোরাঘুরি সবই একসঙ্গে করতে পারি আমরা। এ এক অন্যরকম রোমান্টিক অভিজ্ঞতা।’

এদিকে আলেকজান্ডারের এমন পোস্ট ইন্সটাগ্রামে ভাইরাল হতেই হাজারো নেটিজেন তাদেরকে জিজ্ঞেস করেন- একসঙ্গে শৌচকর্ম কীভাবে সারেন তারা? সে প্রশ্নের উত্তরে তারা জানিয়েছেন, একজন শৌচালয়ে গেলে অন্যজন দাঁড়িয়ে থাকেন বাইরে।

এরই মধ্যে সাফল্যের ইঙ্গিত পেয়েছেন তারা। নেটিজেনদের অনেকেই তাদেরকে ‘ভালোবাসার দম্পতি’ হিসাবে চিহ্নিত করেছেন।