নিউ ইয়র্কে লকডাউনের মধ্যেই বদলে গেছে প্রকৃতি, বদলেছে মানুষও

132

লকডাউনের মধ্যেই বদলে গেছে নিউ ইয়র্কের প্রকৃতি। চারদিকে এখন সবুজের সমারোহ। গাছে গাছে নতুন পাতা। ক্যালেন্ডারের হিসাবে নিউ ইয়র্কসহ আমেরিকার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে এখন স্প্রিং বা বসন্তকাল। আর তাই প্রকৃতির সর্বত্রই এখন বদলে যাওয়ার দৃশ্য। অথচ করোনা ভাইরাস সংক্রমণের শুরুর দিকে মার্চ মাসের তৃতীয় সপ্তাহে যখন এই রাজ্যে ‘স্টে ইন হোম’ বা ঘরে থাকার আদেশি জারি করা হয় তখনও নিউ ইয়র্কের গাছগুলো ছিল পাতাহীন, উদোম।
আমেরিকার উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে ঋতু পরিবর্তনের সাথে সাথে প্রকৃতির রংবদলের এই ধারা চলে আসছে অজানাকাল থেকেই। শরতে চারদিক হয়ে ওঠে আগুনরঙা।

লাল-হলুদের মিশেলে দিকেদিকে প্রকৃতির চোখ ধাঁধানো রূপ। আর শীতকালের শুরুর দিকে ধীরে ধীরে গাছ-গাছালির পাতা ঝরতে শুরু করে। কয়েক সপ্তাহ’র মধ্যেই পুরোপুরি ন্যাড়া হয়ে যায় রাস্তার পাশের গাছ থেকে শুরু করে বন-জঙ্গল সবকিছু। তারপর আবার বসন্তের শুরু থেকে নতুন পাতা ছাড়তে শুরু করে বৃক্ষরাজি। খুব দ্রুতই সবকিছু হয়ে ওঠে মনোরম সবুজ। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। কিন্তু পার্থক্য হলো, অন্যসব বছর প্রকৃতির এই পরিবর্তনগুলো ঘটে মানুষের চোখের সামনেই। প্রতিদিনই একটু একটু করে বদলাতে থাকে সবকিছু। সে কারণে হুট করেই পরিবর্তনটা চোখে ধরা পড়ে না। কিন্তু এই বসন্তে ন্যাড়া গাছগুলো সবুজ হয়ে উঠেছে বেশির ভাগ নগরবাসীর অগোচরেই।
করোনা ভাইরাস মহামারির থাবার মুখে ‘ঘরে থাকা’র আদেশ জারি হলে মার্চের তৃতীয় সপ্তাহ থেকেই নিউ ইয়র্কের বেশিরভাগ মানুষ হয়ে পড়েন ঘরবন্দী। এরপর কেটে গেছে পুরো দু’মাস। এরমধ্যে মার্চের শেষ দশদিন এবং গোটা এপ্রিল মাসজুড়ে এই নগরীতে করোনা’র সংক্রমণ বেড়েছে লাফিয়ে লাফিয়ে। মৃত্যু হয়েছে হাজার হাজার মানুষের। দ্রুতই নিউ ইয়র্ক হয়ে ওঠে করোন’র ইপিসেন্টার বা কেন্দ্রস্থল। এমন ভয়াল পরিস্থিতির মধ্যেও কিছু মানুষ হয়তো জরুরী প্রয়োজনে দু’চার বার ঘর থেকে বেরিয়েছিলেন। কিন্তু বেশিরভাগ মানুষই ছিলেন ঘরের ভেতর। তবে গত বেশ কিছুদিন ধরে একদিকে নিউ ইয়র্কে করোনা’র প্রকোপ কমেছে তাৎপর্যপূর্ন হারে, অন্যদিকে তাপমাত্রাও বেড়েছে দ্রুত। আর তাতেই টানা ঘরবন্দী মানুষগুলোর বড় একটি অংশ ঘর ছেড়ে বেরিয়ে এসেছেন। রাস্তায় নেমেই প্রকৃতির বদলে যাওয়া রূপ দেখে চমকে উঠছেন তারা। নতুন কিছুই নয়। তারপরও যেন অচেনা এক জনপদের দেখা পেয়েছেন নিউ ইয়র্কবাসী। অবশ্য প্রকৃতির মতোই বদলে গেছেন নিউ ইয়র্কের মানুষগুলোও। আতঙ্ক কাটিয়ে ধীরে ধীরে ঘর ছেড়ে বেরিয়ে এলেও প্রায় প্রতিটি মানুষই দারুন সতর্ক। হাতে গোনা কিছু বেয়াড়া মানুষ ছাড়া বাকি সকলেরই মুখে মাস্ক। অনেকেরই হাতে দেখা যাচ্ছে গ্লাভস। রাস্তায়, পার্কে কিংবা নদীর ধারে – সর্বত্রই মানুষ চলছেন নিরাপদ দূরত্ব রক্ষা করে। করোনা মহামারির তান্ডবে বদলে যাওয়া এই দৃশ্যপট কবে নাগাদ আবার আগের চেহারায় ফিরবে, কিংবা আদৌ আর কোনোদিন ফিরবে কিনা- সেই প্রশ্নের জবাব হয়তো এই মুহুর্তে কারোরই জানা নেই।