এনওয়াইপিডির বরাদ্দ কমানোর দাবী

61

পুলিশ বিভাগের বরাদ্দ কমানোর দাবীতে ইনউইয়র্ক সিটি হলের সামনে সমাবেশ করেন শত শত মানুষ। সমাবেশে মে মাসে পুলিশ হেফাজতে মিনেসোটায় জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে পুলিশের বরাদ্দ কমানোর দাবী ওঠে।

পুলিশ বিভাগের বরাদ্দ কমানোর দাবীতে ইনউইয়র্ক সিটি হলের সামনে সমাবেশ করেন শত শত মানুষ। সমাবেশে মে মাসে পুলিশ হেফাজতে মিনেসোটায় জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে পুলিশের বরাদ্দ কমানোর দাবী ওঠে।

সহকর্মী সেলিয়া মেন্দোজা নিউইয়র্কের সমাবেশে অংশ নেয়া কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলেন। ভালদিমার সান্তো তাদের একজন, “অনেক দিন আগে একজন পুলিশ অফিসার আমার ভাইকে দুইবার হগুলী করে। তখন থেকেই আমি তাদেরকে পছন্দ করি না”।

নিউইয়র্ক পুলিশ বিভাগের তথ্য মতে তা্দের বার্ষিক বরাদ্দ ছয় বিলিয়ন ডলারের ওপরে। আন্দোলনকারীদের দাবী ঐ বরাদ্দ থেকে অন্তত এক বিলিয়ন ডলার বাঁচিয়ে সামাজিক উন্নয়ন কাজে লাগানোর চেষ্টা করতে হবে।

নিউইয়র্ক সিটি মেয়র বিল ডে ব্লাজিও এই দাবীর সঙ্গে একমত পোষণ করেন, “আমরা এনওয়াইপিডির বাজেট কমিয়ে যুব উন্নয়ন ও সমাজ কর্মে ব্যবহার করবো”।

তবে পুলিশ বিভাগের অনেক কর্মকর্তা বলেন বরাদ্দ যদি বেশি কাটা হয়, শহরের অপরাধের হার, বিশেষ করে হত্যা যা ইতিমধ্যেই নিউইয়র্কে আশংকাজনক, তা বেড়ে যেতে পারে।

তবে ব্রংক্সের ১৫ ডিস্ট্রিক্টের সিটি কাউন্সিলম্যান রিচি টরেস বলেন পুলিশের বরাদ্দ কমানোর যে লক্ষ্য তাতে যেনো মানুষের নিরাপত্তা কমে না যায়।

“পুলিশের বরাদ্দ কমানোর বিষয়ে একটি ঐক্যমত হয়েছে; আমাদেরকে এই ধারণামুক্ত হতে হবে যে ৯১১ এ কল করলেই সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।“

এই বরাদ্দ কমানোর কারনে এনওয়া্পিডিতে যে আরো ১১শ পুলিশ অফিসার ও স্কুল সেফটি অফিসার নিয়োগের পরিকল্পনা ছিল তা হয়তো বাতিল হবে।

প্রতিবাদকারী আব্রাহাম বাতিস্তার মতে, “বরাদ্দ কমালেও মনে হয়নি খুব পরিবর্তন আসবে। ক্ষমতায় যারা আছে তারা তা ধরে রাখবে। সব একই রকম থাকবে”।

তাদের দাবী না মানা হলে প্রতিবাদকারীরা বলছেন তারা তাদের আন্দোলন অব্যাহত রাখবেন।