ফাহিমের খুনির বিচার দাবিতে লসএঞ্জেলেস-নিউ অর্লিন্স ও নিউইয়র্কে মানববন্ধন

145

পাঠাওয়ের সহ-প্রতিষ্ঠাতা তরুণ উদ্যোক্তা পরিশ্রমী এবং স্বপ্নবাজ প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত মার্কিন নাগরিক ফাহিম সালেহ হত্যার নিন্দা এবং খুনির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবির পাশাপাশি তার আত্মার শান্তি কামনায় যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক, লসএঞ্জেলেস এবং নিউ অর্লিন্সে মানববন্ধন, ভার্চুয়াল আলোচনা ও বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

উল্লেখ্য, ১৩ জুলাই দুপুরে ম্যানহাটানে বিলাস বহুল এপার্টমেন্টে প্রবেশের পর ফাহিম সালেহকে নির্মমভাবে হত্যার সাথে জড়িত অভিযোগে ১৭ জুলাই শুক্রবার তারই সাবেক ব্যক্তিগত সহকারি টাইরেস হ্যাসপিল (২১) কে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে সেকেন্ড ডিগ্রি খুনের চার্জশিট প্রদানের পর ম্যানহাটান ক্রিমিনাল কোর্টে হাজির করা হয় শনিবার ভোররাতে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে। আদালত জামিনহীন আটকাদেশ দিয়ে তাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন।

এদিকে, নতুন প্রজন্মের মেধাবি প্রবাসীর এহেন হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে কমিউনিটিতে নানা কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। ১৮ জুলাই শুক্রবার রাতে ফাহিমের স্মৃতিচারণ ও আত্মার শান্তি কামনায় আন্তর্জাতিক এক জুম মিটিংয়ে অংশ নেন লুইঝিয়ানা স্টেটের নিউঅর্লিন্স, লাফায়েত, লেক চার্লস, মিসিসিপি, ফ্লোরিডা, টেক্সাস, ওহাইয়ো, ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট ছাড়াও সাউথ আফ্রিকা, লন্ডন, বাংলাদেশ থেকে পেশাজীবীরা।
এ মিটিংয়ে অংশ নেয়া নিউঅর্লিন্সের ডেলাগো কমিউনিটি কলেজের চ্যান্সেলর এবং নিউ অর্লিন্স আঞ্চলিক ট্র্যাঞ্জিট অথরিটির কমিশনার ড. মোস্তফা সারোয়ার জানান, সৌদি আরব থেকে যুক্তরাষ্ট্রে এসে ফাহিমেরা সপরিবারে এখানকার লেকচার্লস এলাকায় ছিলেন বেশ ক’বছর। সে কারণে অনেকেই ফাহিমের স্মৃতিচারণ করেন এবং তার মতো অসাধারণ উদ্ভাবনী মেধাসম্পন্ন একজন উঠতি টেক জায়েন্টকে এধরনের নিষ্ঠুর পরিস্থিতির ভিকটিম হওয়ায় সকলে গভীর হতাশা ব্যক্ত করেছেন। দু’ঘণ্টাস্থায়ী এ মিটিংয়ে ৬০ জনেরও অধিক পেশাজীবী অংশ নেন।

এদিকে শনিবার অপরাহ্নে লসএঞ্জেলেসের লিটল বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের উদ্যোগে সিটির সোনার বাংলা চত্বরে ফাহিম হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রেসক্লাবের প্রেসিডেন্ট কাজী মাশহুরুল হুদা এবং সমন্বয় করেন সেক্রেটারি লস্কর আল মামুন। ফাহিম হত্যার নেপথ্য মদদদাতাদের হদিস উদঘাটন এবং ঘাতকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবির প্লেকার্ড হাতে অংশ নেন প্রবাসীরা। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ফিরোজ আলম, আজীজ মোহাম্মদ, ডেনী তৈয়ব প্রমুখ।

এর আগে ফাহিমের হত্যায় মদদদাতাদের শনাক্ত এবং ঘাতকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবিতে ১৬ জুলাই সন্ধ্যায় নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে ডাইভার্সিটি প্লাজায় এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয় যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক সংগঠন ‘ইউএস বাংলাদেশ কো-অপারেশন (ইউবকো)’র প্রেসিডেন্ট জসীম উদ্দিনের সভাপতিত্বে।

এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন ইউবকো’র উপদেষ্টা হাকিকুল ইসলাম খোকন এবং মুক্তিযোদ্ধা মশিউর রহমান, ইউবকো সহ-সভাপতি পলাশ, সাধারণ সম্পাদক আবুল হায়াত, সাংবাদিক তোফাজ্জেল হোসেন লিটন প্রমূখ।