নির্বাচিত হলে “মুসলিম নিষিদ্ধ” আইন বাতিল করব : জো বাইডেন!

86

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে যদি বিজয়ী হতে পারি তাহলে অত্যন্ত গৌরববোধ করব এবং দায়িত্ব গ্রহণের প্রথম দিনেই ট্রাম্পের মুসলমান নিষিদ্ধ করার সব নির্দেশ বাতিল করব। মুসলিম-বিদ্বেষমূলক কোনো কিছুর চিহ্ন রাখব না হোয়াইট হাউস এবং ফেডারেল প্রশাসনে।

২০ জুলাই এক ভার্চুয়াল কনফারেন্সে এ সংকল্পের পুনর্ব্যক্ত করেছেন ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেন। যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম-আমেরিকানদের বৃহত্তম পলিটিক্যাল অ্যাকশন কমিটির সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে বাইডেন বলেছেন, আমাদের সংবিধান সব জাতি, ধর্ম, বর্ণ, গোত্রের মানুষের অধিকার সুসংহত করেছে। সেই চেতনাকে সমুন্নত রাখতে সব সময়ই আমরা অঙ্গীকারাবদ্ধ। মিলিয়ন মুসলিম ভোট সামিট’ শিরোনামের এই ভিডিও কনফারেন্সে জানানো হয়, গত এপ্রিলেই আনুষ্ঠানিকভাবে বাইডেনকে সমর্থন দিয়েছে মুসলিম আমেরিকানরা। উল্লেখ্য, ইরান, লিবিয়া, সোমালিয়া, নর্থ কোরিয়া, সিরিয়া, ভেনেজুয়েলা এবং ইয়েমেনের নাগরিকদের ভিসা নিষিদ্ধের বিশেষ নির্বাহী আদেশ জারি করেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে অর্থাৎ ২০ জানুয়ারি শপথ গ্রহণের পরই। বাইডেন এ সময় আরও উল্লেখ করেছেন, একটি বিষয় আমার মনে হয় খুবই গুরুত্বপূর্ণ, আর তা হচ্ছে আমাদের স্কুলে ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে বিস্তারিত পড়ানো হয় না। সেটি গুরুত্বের সঙ্গে করার পদক্ষেপ নেব। বাইডেন ট্রাম্পের ধর্মীয় বিদ্বেষমূলক কর্মকান্ডের কঠোর সমালোচনা করে বলেছেন যে, তিনি বিদ্বেষের বিষবাষ্প ছড়িয়েছেন সমগ্র আমেরিকায়। ট্রাম্প প্রশাসনের আমলে কা-জ্ঞানহীনভাবে ইসলামিক ফোবিয়ার নগ্ন প্রকাশ ঘটেছে। স্কুলেও কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীরা আক্রান্ত হয়েছে বিদ্বেষমূলক ভাবে। কমিউনিটিতে হেইট ক্রাইম বেড়েছে। ইসলাম ধর্মকে ঘৃণা করেন এবং মুসলমানদের সহ্য করতে পারেন না এমন কিছু অ-আমেরিকানকে ট্রাম্পের মন্ত্রিপরিষদে নেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।