বাবরি মসজিদের জন্য পাঁচ একর জমি বরাদ্দ

92

অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজো নিয়ে যখন হইচই চলছে ঠিক তার আগে সেখানকার সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মতো মসজিদ নির্মাণের জন্য পাঁচ একর জমির মালিকানা সংক্রান্ত নথিপত্র তুলে দিলেন অযোধ্যার জেলাশাসক।

অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজো নিয়ে যখন হইচই চলছে ঠিক তার আগে সেখানকার সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মতো মসজিদ নির্মাণের জন্য পাঁচ একর জমির মালিকানা সংক্রান্ত নথিপত্র তুলে দিলেন অযোধ্যার জেলাশাসক।

মাত্র কয়েকদিন আগেই সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড মসজিদ তৈরির প্রাথমিক শর্ত অনুযায়ী ন’জনের একটি অছি পরিষদ গঠন করেছে, তার নাম দেওয়া হয়েছে ইন্দো ইসলামিক কালচারাল ফাউন্ডেশন। তাঁরা এই সপ্তাহান্তে অযোধ্যার জেলাশাসক অনুজ কুমার ঝা’র বাসভবনে গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করেন। জেলাশাসক তাঁদের কাছে যথাবিহিত জমির নথিপত্র তুলে দেন। এই জমি অযোধ্যায় আগে যেখানে বাবরি মসজিদ ছিল সেখান থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে, ফৈজাবাদের ধন্নিপুর গ্রামে।

জমির নথি হাতে পেয়ে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের সভাপতি জাফর আহমেদ ফারুকী বলেন, এবার আমরা নিজেদের মধ্যে বৈঠকে বসে কী ভাবে মসজিদ তৈরি হবে, কাকে দিয়ে তৈরি করানো হবে, ইত্যাদি নিয়ে কথা বলব। তারপরে মসজিদের নকশা করা হবে‌। সব মিলিয়ে প্রাথমিক কাজটা শুরু হতে একটু সময় লাগবে, তারপর সেটা নিজস্ব গতিতে চলবে। উল্লেখ্য, রাম মন্দির নিয়ে যখন সারা ভারতে হিন্দুত্ববাদীদের মধ্যে উদ্দীপনার জোয়ার দেখা যাচ্ছে, সেই সময় অযোধ্যায় মসজিদের কাজ কিন্তু নীরবে এগিয়ে চলেছে। তবে একটা জিনিস খুব স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে যে অযোধ্যার মুসলমানরা কোনও কিছু নিয়ে আর বিতর্কে জড়াতে চান না। দীপংকর চক্রবর্তী, ভয়েস অফ আমেরিকা, কলকাতা