নির্বাচন নিয়ে ট্রাম্পের সংশয়

130

আগামী ৩রা নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। সাধারণত, নির্বাচনের ফল দিনশেষে রাতেই স্পষ্ট হতে থাকে। কিন্তু এবার নির্বাচনের ফল বিলম্বিত হবে। এই বিলম্ব কয়েক সপ্তাহ, কয়েক মাস হতে পারে বলে দাবি করেছেন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। এবার করোনা ভাইরাসের কারণে নির্বাচনের ফলগুলো যাবে পোস্ট অফিস এবং স্থানীয় নির্বাচনী সংস্থাগুলোতে। এ নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন ট্রাম্প। বলেছেন, নির্বাচনের রাতে ফল নাও পাওয়া যেতে পারে। রক্ষণশীল গ্রুপ কাউন্সিল অব ন্যাশনাল পলিসিতে দেয়া এক ভাষণে তিনি বলেন, ৩রা নভেম্বরে নির্বাচনের ফল কখনো গণনা নাও হতে পারে।

আমার মতে, আপনারা এই নির্বাচনের শেষটা কয়েক সপ্তাহ, মাস অথবা কখনোই জানতে পারবেন না। বার্তা সংস্থা এএফপিকে উদ্ধৃত করে এ খবর দিয়েছে অনলাইন এনডিটিভি।
প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রায় ৫ কোটি ভোট পড়বে মেইল ব্যবস্থায় এমনটা আশা করা হয়। করোনার কারণে মেইলে ভোট নেয়ার ওপর জোর দেয়া হয়েছে। এ নিয়েই রাজনৈতিক উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। দেখা দিয়েছে আইনগত চ্যালেঞ্জ। এর ফলে নির্বাচনের ফল আরও বিলম্বিত হতে পারে। ট্রাম্প অভিযোগ করেছেন, মেইলে দেয়া ভোটকে কেন্দ্র করে ফল জালিয়াতি করতে পারে ডেমোক্রেটরা। তিনি বলেন, আমরা এই ৫ কোটি ১০ লাখ ব্যালটের জন্য প্রস্তুত নই। এটা হবে দেশের জন্য এক ভয়ঙ্কর বিব্রতকর অবস্থা। গণতন্ত্রের জন্য এটা একটা মারাত্মক সমস্যা।
বুধবার যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাচনে নিরাপত্তা বিষয়ক শীর্ষ কর্মকর্তা বিল ইভানিনা বলেছেন, ৩রা নভেম্বরে ভোট হওয়ার পর ভোট গণনায় বাইরের হস্তক্ষেপ হতে পারে বলে তিনি সবচেয়ে বেশি উদ্বিগ্ন। ন্যাশনাল কাউন্টার ইন্টেলিজেন্স এন্ড সিকিউরিটি সেন্টারের পরিচালক বিল ইভানিনা। তিনি বলেন, নির্বাচনকে ঘিরে রাশিয়া, চীন, ইরান ও অন্যদের নিয়ে উদ্বেগ আছে। কিন্তু নির্বাচনের দিন নিয়ে আমি বেশি উদ্বিগ্ন। তিনি আরো বলেন, বাইরের শক্তিগুলো র‌্যানসামওয়্যার অথবা সাইবার হামলার মাধ্যমে ভোটে হস্তক্ষেপ করতে পারে। ভোট দেয়া, গণনা ও স্থানান্তর প্রক্রিয়াকে তারা হ্যাকিং করে পণ্ড করে দিতে পারে। তাই আমাদেরকে জাতি হিসেবে প্রস্তুত থাকতে হবে যে, ৩রা নভেম্বরেই নির্বাচনের ফল নির্ধারিত হবে না।