করোনা টিকার উৎপাদন শুরু করেছে এস্ট্রাজেনেকা: যুক্তরাজ্য

84

অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির বিজ্ঞানীদের তৈরি করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) পরীক্ষামূলক টিকাটির বিশাল সংখ্যার ডোজ উৎপাদন শুরু করেছে বৃটিশ-সুইডিশ ওষুধ প্রস্তুতকারী কোম্পানি এস্ট্রাজেনেকা। বৃটিশ সরকারের সঙ্গে প্রতিষ্ঠানটির করা প্রাথমিক চুক্তির আওতায় ৩ কোটি ডোজ উৎপাদন করছে প্রতিষ্ঠানটি। যদিও টিকাটি এখনো সর্বজনীন ব্যবহারের জন্য অনুমোদন দেয়নি কোনো সরকার। যুক্তরাজ্যসহ একাধিক দেশে এখনো এটির ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে। এ খবর দিয়েছে দ্য গার্ডিয়ান।

খবরে বলা হয়, অক্সফোর্ডের টিকাটি সর্বজনীন ব্যবহারের অনুমোদন না পেলেও গত মাসে এটির কার্যকারিতা নিশ্চিতে পর্যাপ্ত উপাত্ত থাকার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছিলেন অক্সফোর্ড ভ্যাকসিন গ্রুপের পরিচালক অধ্যাপক অ্যান্ড্রিও পোলার্ড। তিনি বলেছিলেন, চলতি বছরেই অনুমোদন পাওয়ার জন্য নিয়ন্ত্রকদের কাছে জমা দেয়ার মতো পর্যাপ্ত উপাত্ত থেকে থাকতে পারে।

বৃটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক সোমবার জানান, যুক্তরাজ্যের জন্য এস্ট্রাজেনেকার নির্ধারিত ব্যাচের উৎপাদন ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গেছে। তিনি বলেন, এস্ট্রাজেনেকার সঙ্গে আমাদের ৩ কোটি ডোজ টিকা পাওয়ার চুক্তি রয়েছে। সে ডোজগুলোর উৎপাদন ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গেছে।

অনুমোদন পাওয়া গেলে, আমরা তাৎক্ষণিকভাবে সেগুলো ব্যবহার করতে পারবো।

হ্যানকক বলেন, সবচেয়ে ভালো পরিস্থিতিতে এ বছরই অনুমোদন পেতে পারে টিকাটি। তবে আমি মনে করি, আগামী বছর অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। তবে অনুমোদন পাওয়ার দৌড়ে এস্ট্রাজেনেকার চেয়ে এগিয়ে আছে, এমন টিকাও আমরা কিনে রেখেছি।

প্রসঙ্গত, অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীদের সঙ্গে মিলে যৌথভাবে টিকাটি তৈরি করেছে এস্ট্রাজেনেকা। শিমপাঞ্জিদের দেহে পাওয়া যায়, করোনাভাইরাসের সঙ্গে সাদৃশ্য রয়েছে এমন একটি ভাইরাস ব্যবহার করে টিকাটি তৈরি করেছে তারা। প্রাথমিক পরীক্ষার ফলাফল অনুসারে, টিকাটি করোনার বিরুদ্ধে জোরালো প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করতে পেরেছে। বর্তমানে প্রায় আধাডজন দেশে এর শেষ ধাপের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে।