যুক্তরাষ্ট্রের ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার ১৯তম বর্ষপূর্তি আজ

176

যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার ১৯তম বর্ষপূর্তি আজ। সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আল কায়দার ১৯ জন সদস্য সেদিন ৪টি বিমান ছিনতাই করে আত্মঘাতী হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি স্থানে। দুটি প্লেন আঘাত হানে নিউইয়র্কের টুইন টাওয়ারে, তৃতীয় প্লেন আঘাত হানে সামরিক সদর দপ্তর পেন্টাগনে, আর চতুর্থটি আঘাত হানে পেনসিলভেনিয়ার শ্যাঙ্কসভিলের একটি মাঠে।

করোনা মহামারির কারণে এ বছর ৯/১১ পালিত হচ্ছে ভিন্ন ভাবে। গত ১৮ বছর ধরে নিউইয়র্কের গ্রাউন্ড জিরো, পেন্টাগন ও পেনসিলভেনিয়ায় ৯/১১ সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের স্মরণে নির্মিত স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানানোর মধ্যে দিয়ে দিনটি পালিত হয়ে আসছে।

২০০১ সালের সেই সন্ত্রাসী হামলায় মারা যান ৩ হাজারেরও বেশি নিরপরাধ মানুষ। সেদিনের হামলায় ফ্লাইট ৯৩র নিহত ২৯৮৩ পুরুষ নারী ও শিশুর নাম এবার ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অনলাইনে শোনানো হয়।৯/১১ এ ছিনতাই করা দুটি বিমান এর প্রথমটি আমেরিকান এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৬৭ ২০,০০০ গ্যালন তেল নিয়ে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের উত্তর টাওয়ারে আঘাত হানে সকাল ৮.৪৬ মিনিটে আর তার ১8 মিনিট পর ৯.০২ মিনিটে দ্বিতীয় বিমান ইউনাইটেড এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৬৭—ফ্লাইট ১৭৫ আঘাত হানে দক্ষিন টাওয়ারে। এবং পেনসিলভেনিয়ার শ্যাঙ্কসভিলে বিদ্ধস্থ হয় ছিনতাই করা ইউনাইটেড এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট ৯৩। নিউইয়র্কের দুটো টাওয়ার ধংস হয় যথাক্রমে ৯.৫৯ ও ১০.২৮ মিনিটে। পেন্টাগনে আঘাত হয় ৯.৩৭ মিনিটে।

​করোনার কারণে এবার ৯/১১ স্মরণ অনুষ্ঠান সীমিত করা হলেও গ্রাউন্ড জিরোতে নিউইয়র্ক মেয়র বিল ডে ব্লাসিও প্রার্থনা ও শ্রদ্ধা জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে অংশ নেন। ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স তাঁর স্ত্রী ক্যারেন পেন্স অনুষ্ঠানে অংশ নিতে নিউইয়র্কে আছেন।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প পেনসেলভেনিয়ার শ্রদ্ধা জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন। পেন্টাগন মেমোরিয়ালে একটি বিশেষ অনুষ্ঠান হয় সকাল সাড়ে ৭টায়। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষমন্ত্রী মার্ক এস্পার, জয়েন্ট চিফস অফ স্টাফ চেয়ারম্যান জেনারেল মার্ক মিলে ভার্চুয়াল স্মরণ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন।

অন্যবারের মত এবার নিহতদের পরিবারের সদস্যরা একসঙ্গে উপস্থিত না হলেও সারাদিন বিভিন্ন সময়ে তারা পেন্টাগন মেমোরিয়ালে এসে শ্রদ্ধা জানাবেন, প্রার্থনা করবেন তাদের হারিয়ে যাওয়া প্রিয়জনদের জন্য।