যুক্তরাষ্ট্রে টীকা তৈরির চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে জনসন এন্ড জনসন

202

যুক্তরাষ্ট্রের বিশাল ওষুধ কোম্পানি জনসন এন্ড জনসন যুক্তরাষ্ট্রে মানবদেহের উপর কভিড-১৯ এর একটি মাত্র ডোজ প্রয়োগের পরীক্ষার চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। জনসন এন্ড জনসন’এর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড: পল স্টফেল্স গতকাল সংবাদদাতাদের বলেছেন যে যুক্তরাষ্ট্রের ২১৫টি স্থানে এবং আন্তর্জাতিক ভাবে আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, চিলি, কলম্বিয়া, মেক্সিকো, পেরু এবং দক্ষিণ আফ্রিকায় ৬০ হাজার লোক এই টীকা গ্রহণ করছেন। ড: স্টফেল্স বলেন যে প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ে যুক্তরাষ্ট্র ও বেলজিয়ামে এই টীকার ইতিবাচক ফলাফল পাবার পর, এখন জনসন এন্ড জনসন এই পরীক্ষার চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। জনসন এন্ড জনসন’এর টীকা হচ্ছে করোনাভাইরাসের এমন চতুর্থ সম্ভাব্য টীকা যেটি যুক্তরাষ্ট্রে ব্যাপক ভাবে তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে।

অন্যান্য সম্ভাব্য টীকা তৈরিতে সক্রিয় কোম্পানিগুলো হচ্ছে মর্ডেনা, অ্যাস্ট্রা জেনেকা এবং ফাইজার ও জার্মানি ভিত্তিক কোম্পানি বায়োএন্ড টেক। এই চারটি প্রয়াসের সব কয়টি ট্রাম্প প্রশাসনের অপারেশন ওয়ার্প স্পিড নামের করোনাভাইরাস টীকা প্রচেষ্টার অধীনে পরিচালিত হচ্ছে।এই উদ্যোগের লক্ষ্য হচ্ছে ২০২১ সালের জানুয়ারি মাস নাগাদ অনুমোদিত টীকার তিরিশ কোটি ডোজ বিতরণ করা। জনসন এন্ড জনসন‘এর টীকার সুবিধা হচ্ছে এতে মাত্র এক ডোজ দেয়া হবে। বাকি তিনটি সম্ভাব্য টীকাতে দুই ডোজ দিতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প জনসন এন্ড জনসন‘এর এই ঘোষণাকে টুইটারে স্বাগত জানিয়ে বলেন এ ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসনকে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে।