পুতিনকে নোবেল শান্তি পুরষ্কারের জন্য মনোনয়ন

218
Russian President Vladimir Putin is seen on screen as he delivers his annual state of the nation address to the Federal Assembly in Moscow, Russia January 15, 2020. REUTERS/Maxim Shemetov TPX IMAGES OF THE DAY

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর নামের পর এবার নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা তাসের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে সিবিএস নিউজ।

পুতিন এমন সময় নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনীত হলেন যখন তার প্রতিদ্বন্দ্বী বিরোধী দলীয় নেতা অ্যালাক্সি নাভালনি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। ওই নেতার শরীরে বিষপ্রয়োগের ঘটনা ঘটে। যদিও এ ঘটনায় তার সম্পৃক্ততার বিষয়টি অস্বীকার করছেন পুতিন।

বিখ্যাত রুশ লেখক সের্গেই কোমকভের নেতৃত্বে লেখকদের একটি সংগঠন পুতিনের নাম মনোনীত করে নোবেল কমিটির কাছে বিবেচনার জন্য পাঠিয়েছে।

তাদের মতে, গোটা বিশ্ব শান্তি স্থাপনে ট্রাম্প এবং নেতানিয়াহুর তুলনায় অনেক বেশি উদ্যোগী ছিলেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তাই তাকে যেন এই পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হয়। এর আগে ২০১৩ সালেও নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছিলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট।

প্রসঙ্গত, নির্দিষ্ট কিছু শর্ত মানলে যেকোনও ব্যক্তি অন্য কাউকে নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত করতে পারেন। আর তার নাম নোবেল কমিটির কাছে পাঠাতে পারেন। ইতিমধ্যে ২০২০ সালের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য ৩০০টি নাম মনোনিত হয়েছে।

আগামী ৯ অক্টোবর চলতি বছরের নোবেল প্রাপকদের নাম ঘোষণা করবে নোবেল কমিটি।

এই তালিকায় পুতিন ছাড়াও রয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর নাম। সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ইসরায়েলের মধ্যে দীর্ঘদিনের ঝগড়া মিটিয়ে চুক্তি করাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন ট্রাম্প। সেজন্য মার্কিন প্রেসিডেন্টের নাম নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত করেন নরওয়ের সাংসদ ক্রিশ্চিয়ান টাইব্রিং জিজেডে।

এরপর সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইনের সঙ্গে চুক্তি করায় নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হন। ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর নাম মনোনীত করেন ইটালির নর্দান লিগ পার্টির সাংসদ পাওলো গ্রিমোলদি। এমনকি ঐতিহাসিক এই কাজের জন্য এবছর আমেরিকার রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু যৌথভাবে নোবেল শান্তি পুরস্কার পাবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি। নোবেল কমিটির কাছে জমা দেওয়া ইটালির সাংসদের প্রস্তাবে সমর্থন জানিয়েছেন ফিনল্যান্ডের এমপিরা।

শান্তিতে নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেলেন অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইনের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিকীরণের জন্য চুক্তি করায় তাকে এই মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। এর আগে ইসরাইলের সঙ্গে আরব বিশ্বের সম্পর্ক উন্নয়নের সহযোগিতার জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মনোনয়ন দেয়া হয়।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ জানায়, মঙ্গলবার হোয়াইট হাউজে ওই ঐতিহাসিক চুক্তি স্বাক্ষর হয়।

গত বুধবার ইতালীয় সংসদ সদস্য ও অ্যান্টি মাইগ্রেন্ট লিগ পার্টির নেতা পাওলো গ্রিমোলদি এ বছর শান্তিতে নোবেল পুরস্কারের জন্য নেতানিয়াহুর নাম প্রস্তাব করেন।

ইসরাইলের সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী ও নেতানিয়াহুর লিকুড পার্টির নেতা আয়ুব কারা এক টুইট বার্তায় জানিয়েছেন, সংস্থাটির প্রধান বাহরাইন ও আমিরাতের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করায় নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হন।

জেরুজালেম পোস্ট বলছে, ইতালির সংসদ সদস্য ইসরাইলিদের ঘনিষ্ঠ বন্ধু বলে পরিচিত। তিনি বহুবার ইসরাইল সফরে গিয়েছেন, যদিও নেতানিয়াহুর সঙ্গে তার কখনও সাক্ষাৎ হয়নি।