আফগানিস্তান থেকে আমেরিকান সৈন্য দ্রুত ফিরিয়ে আনা হবে: ট্রাম্প

177

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প গতকাল বুধবার বলেন তিনি এ বছর শেষ হবার আগেই আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সব সৈন্যকে স্বদেশে ফিরিয়ে আনতে চান। এই নতুন সময়সীমা এর আগে দেয়া তাঁর প্রশাসনের সময়সীমার চেয়ে অনেক আগে। গতকাল শেষ রাতে ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় বলেন, “আমাদের যে অবশিষ্ট স্বল্প সংখ্যক সাহসী নারী ও পুরুষ আফগানিস্তানে রয়েছেন, তাঁদের এ বছর বড়দিন নাগাদ দেশে ফিরে আসা উচিত্”।

যুক্তরাষ্ট্রের এই দীর্ঘতম যুদ্ধের সূচনা হয় ২০০১ সালে যখন নিউ ইয়র্ক সিটি এবং ওয়াশিংটন ডিসিতে ১১ই সেপ্টেম্বরের হামলার ফলে যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তান দখল করে। এর ফলে আফগানিস্তানের তদানীন্তন কট্টর শাসক তালিবানের পতন ঘটে। তালিবানই আলক্বায়দা সন্ত্রাসী চক্র এবং তাদের নেতা ওসামা বিন লাদেনকে লালন করেছে যে কীনা ১১ই সেপ্টেম্বরের আক্রমণের প্রধান হোতা ছিল। তবে তালিবান ক্ষমতা থেকে উৎখাত হলেও যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত আফগানিস্তানের অসামরিক সরকারের বিরুদ্ধে বিরতিহীন লড়াই এবং রক্তাক্ত বিদ্রোহ অব্যাহত থেকেছে।

এ বছর ফেব্রুয়ারি মাসে যুক্তরাষ্ট্র ও তালিবান একটি চুক্তি সম্পাদন করে যাতে বলা হয়েছে যে, যুক্তরাষ্ট্র ২০২১ সালের মাঝামাঝি নাগাদ তার সব সৈন্য প্রত্যাহার করে নেবে এই আশ্বাসের পরিবর্তে যে তালিবান সন্ত্রাসী গোষ্ঠিগুলোকে আফগানিস্তানের ভূমিকে আন্তর্জাতিক হামলার জন্য ব্যবহার করতে দেবে না।এ দিকে তালিবান স্থায়ী ভাবে অস্ত্র বিরতি এবং ক্ষমতা ভাগাভাগির সরকার গঠনের লক্ষে সমঝোতায় পৌছুনোর জন্য আফগানিস্তানের বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করছে। ট্রাম্পের ঐ টুইট বার্তার মাত্র ঘন্টা কয়েক আগেই, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা রবার্ট ও’ ব্রায়ান বলেন যুক্তরাষ্ট্র ২০২১ সালের গোড়ার দিকেই তার সৈন্য সংখ্যা পাঁচ হাজার থেকে আড়াই হাজারে নামিয়ে আনতে ইচ্ছুক ।