ইউরোপ-আমেরিকায় আকাশছোঁয়া সংক্রমণ দেখে বিশেষজ্ঞরা শঙ্কিত

180

মৃত্যুর কারিগর করোনা। বিশ্বব্যাপী আতঙ্কের নামও করোনা। প্রায় এক বছর হতে চলল এর দাপট কমেনি। বরং বংশ বিস্তার করেই চলেছে। ইউরোপ-আমেরিকায় আবারও আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। এশিয়াতেও স্বস্তির নিঃশ্বাস নেই। দক্ষিণ এশিয়ায় ভারত শীর্ষে। জ্যামিতিক হারে সংক্রমণ বাড়ছে দেশটিতে। বাংলাদেশ এর বাইরে নয়। মৃত্যুর সংখ্যা সহনীয় অন্তত সরকারি হিসেবে। সংক্রমণ প্রায় চার লাখের কাছাকাছি। শীতে সংক্রমণ লাফ দিয়ে বাড়বে এমনটাই বলছেন জনস্বাস্থ্য বিজ্ঞানীরা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা শুক্রবার আবারও হুঁশিয়ারি দিয়েছে। বলেছে, বিশ্বের জন্য সামনের কয়েক মাস খুবই কঠিন সময়। এটা ঠিক, ভাইরাসটি স্বাভাবিক জনজীবন বিপন্ন করেছে। পর্যুদস্ত করেছে বিশ্ব অর্থনীতি। স্বাস্থ্য ব্যবস্থা চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলেছে। দেশে দেশে মানুষকে করেছে স্বেচ্ছাবন্দি। এই যখন অবস্থা তখন ভ্যাকসিন খুব দ্রুত পাওয়া যাবে এমন নিশ্চয়তাও নেই। এ নিয়ে বিশ্ব রাজনীতি সরব। বাংলাদেশে সবই স্বাভাবিক মনে হলেও স্বাভাবিক নয়। ব্যবসা-বাণিজ্য এখনো স্থবির। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ। সংবাদপত্র ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। দ্বিতীয় ঢেউ এর খবর মানুষকে আবারও শঙ্কিত করেছে। কিছু মানুষের মধ্যে অবশ্য সতর্কতার চিহ্ন মাত্র নেই। ইউরোপ-আমেরিকায় আকাশছোঁয়া সংক্রমণ দেখে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দ্বিতীয় ঢেউকে হালকাভাবে নেয়ার সুযোগ নেই। ইউরোপের দিকে তাকালে দেখা যায় কী ভয়ংকর রুপে ফিরে এসেছে! অনেক দেশের অর্থনীতি ভেঙ্গে পড়লেও বাংলাদেশ সংকট কাটিয়ে উঠতে শুরু করেছে। আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল আইএমএফ বলেছে, এ বছর বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ভারতকে ছাড়িয়ে যাবে। এখন এটা প্রমাণিত, বাংলাদেশ অনেকদিন ধরে বিশ্বের অন্যতম দ্রুত বিকাশমান অর্থনীতির দেশ। অর্থনীতির নানা সূচক ওঠানামা করলেও রেমিট্যান্স চাঙ্গা। এই মহামারীর মধ্যেও প্রবাসীরা দেশে টাকা পাঠাচ্ছেন। যদিও প্রায় ৭৮ হাজার অভিবাসী চাকরি হারিয়েছেন। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানিয়েছেন, ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে ১৮ দশমিক দুই বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স এসেছে। যা যে কোনো সময়ের তুলনায় বেশি।

কাতার থেকে দেশে আসা বাংলাদেশিরা যাতে দ্রুততম সময়ের মধ্যে পুনরায় ভিসা পান সেজন্য বিশেষ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বাংলাদেশের অনুরোধের প্রেক্ষিতে কাতার বলেছে, তারা নতুন ভিসা ইস্যু করার বিষয়টি বিবেচনা করবে।

ওদিকে করোনায় আরও ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনাক্ত হয়েছেন এক হাজার ৯৪ জন। টিকা কিনতে জনসংখ্যার ভিত্তিতে ঋণ মঞ্জুরের জন্য বিশ্ব ব্যাংকের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।