বাইডেন ক্লেনকে তাঁর চীফ অফ স্টাফ নিয়োগের ঘোষণা দিলেন

196

গতকাল এক বিবৃতিতে বাইডেন ক্লেন সম্পর্কে বলেন , “ তাঁর গভীর ‌ও বিচিত্র অভিজ্ঞতা এবং সব রকমের রাজনৈতিক মতবাদের লোকের সঙ্গে তাঁর কাজ করার দক্ষতাই হচ্ছে হোয়াইট হাউজের চিফ অফ স্টাফের জন্য খুবই জরুরি বিশেষত এই মূহুর্তে যখন আমরা এই সংকটের মোকাবিলা করছি এবং আমাদের দেশকে আবার একত্রিত করার চেষ্টা করছি”। ক্লেন তাঁর এই নতুন নিয়োগকে আজীবনের সম্মাননা বলে বর্ণনা করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ঘোষণা করেছেন যে তাঁর দীর্ঘদিনের উপদেষ্টা রন ক্লেনকে তিনি হোয়াইট হাউজে তাঁর চীফ অফ স্টাফ পদে নিয়োগ দিচ্ছেন। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময়ে ক্লেন ভাইস প্রেসিডেন্ট বাইডেনের চীফ অফ স্টাফ হিসেবে কাজ করেছেন । তাছাড়া ওবামা ২০১৪ সালে তাঁকে ইবোলা রোগ মোকাবিলা টিমের দায়িত্বও দিয়েছিলেন। গতকাল এক বিবৃতিতে বাইডেন ক্লেন সম্পর্কে বলেন , “ তাঁর গভীর ‌ও বিচিত্র অভিজ্ঞতা এবং সব রকমের রাজনৈতিক মতবাদের লোকের সঙ্গে তাঁর কাজ করার দক্ষতাই হচ্ছে হোয়াইট হাউজের চিফ অফ স্টাফের জন্য খুবই জরুরি বিশেষত এই মূহুর্তে যখন আমরা এই সংকটের মোকাবিলা করছি এবং আমাদের দেশকে আবার একত্রিত করার চেষ্টা করছি”। ক্লেন তাঁর এই নতুন নিয়োগকে আজীবনের সম্মাননা বলে বর্ণনা করেছেন।

২০ শে জানুয়ারি তাঁর অভিষেকের পর বাইডেন আমেরিকান সরকারের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণের যখন পরিকল্পনা করছেন সেই সময়ে তিনি অন্তর্বর্তী কালীন উপদেষ্টাদের সঙ্গে বৈঠক করে যাচ্ছেন । এই উপদেষ্টারা সেই সব বিষয়ের সঙ্গে পরিচিত যা তাঁকে তাঁর প্রশাসনের প্রথমদিকে মোকাবিলা করতে হবে। তেসরা নভেম্বরের নির্বাচনে যিনি বিজয়ী বলে সংবাদ মাধ্যম বলছে সেই বাইডেন সরকারের বিভিন্ বিভাগের কার্যক্রম দেখার জন্য কয়েকজন উপদেষ্টার নামও ঘোষণা করেছেন। তিনি এর আগেই গত মঙ্গলবার জানিয়েছিলেন যে ২৬ শে নভেম্বর থ্যাংকস গিভিং ডে ‘র আগেই তিনি গুরুত্বপূর্ণ কিছু পদে নিয়োগের কথা ঘোষণা করবেন।

এ দিকে প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প গত সপ্তার জাতীয় নির্বাচনে বাইডেনের কাছে তাঁর বাহ্যত পরাজয় স্বীকার করছেন না এবং কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক অঙ্গরাজ্যে ফলাফল সম্পর্কে আইনি লড়াইয়ে লিপ্ত হয়েছেন। তেমন কোন প্রমাণ ছাড়াই ট্রাম্প দাবি করছেন যে ভোট প্রদান ও গণনায় অনিয়ম হওয়ায় তাঁকে এর মূল্য দিতে হচ্ছে।