নিজের নাক কেটে বাইডেনের যাত্রা ভঙ্গের চেষ্টা ট্রাম্পের আইনজীবীর

156

উইসকনসিন অঙ্গরাজ্যে ভোট পুনঃগণনা চলছে। সেখানে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পে আইনি দলের প্রধান নিজেই দাবি করেছেন, তিনি অবৈধভাবে ভোট দিয়েছিলেন। ভোট জালিয়াতির প্রমাণ হিসেবে নিজের ভোটটিকেই হাজির করে তিনি এখন তা বাতিলের দাবি করছেন। একই সঙ্গে ডাকযোগে পাঠানো যেসব ব্যালট সরাসরি জমা দেওয়া হয়েছে, তার সব বাতিলের দাবিও করেছেন তিনি।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ইউএসএটুডের প্রতিবেদনে বলা হয়, উইসকনসিনের ডেন কাউন্টির সাবেক বিচারক ও বর্তমানে আইনি পেশায় থাকা জিম ট্রোপিস অঙ্গরাজ্যটিতে ডোনাল্ড ট্রাম্পের হয়ে লড়ছেন। তাঁর দাবি, তিনি ও তাঁর স্ত্রী দুজনই অবৈধভাবে ভোট দিয়েছেন। ফলে এ দুই ভোটসহ সরাসরি জমা পড়া ডাকযোগে পাঠানো ব্যালটগুলো বাতিল করা উচিত।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রচার শিবির থেকে অনেক আগে থেকেই দাবি করা হচ্ছে, যেন ডাকযোগে পাঠানো কিন্তু সরাসরি জমা পড়া ব্যালটগুলো বাতিল করা হয়। এই ব্যালটগুলোর মাধ্যমে পড়া ভোটগুলোকে অবৈধ দাবি করে আসছে ট্রাম্প শিবির। তবে কীভাবে এগুলো অবৈধ হলো, তার পক্ষে কোনো যুক্তি-প্রমাণ হাজির করতে পারেনি তারা। এই দাবি প্রমাণের লক্ষ্যে সর্বশেষ এই অবস্থান নিল ট্রাম্প শিবির।
ইউএসএটুডে জানায়, উইসকনসিন অঙ্গরাজ্যে ভোট পুনঃগণনা শুরু হয় গত শুক্রবার। তিন দিন পার হয়ে গেছে। এর মধ্যেই গতকাল রোববার জিম ট্রোপিস অঙ্গরাজ্যটির ডেন কাউন্টি বোর্ড অব ক্যানভাসারসে নিজের ভোটসহ সশরীরে জমা পড়া ডাকযোগে ভোটগুলোকে ‘অবৈধ’ দাবি করে, তা বাতিলের আবেদন জমা দিয়েছেন। তিনি এ সম্পর্কিত একটি তালিকাও জমা দিয়েছেন। তবে তাঁর এই যুক্তি আমলে নেয়নি কর্তৃপক্ষ।

তবে এমন দাবি উপস্থাপনের সময় ‘কেন তিনি ও তাঁর স্ত্রী অবৈধ পন্থায় ভোট দিলেন’—সে প্রশ্নের কোনো উত্তর দেননি জিম ট্রোপিস। জিম ট্রোপিস শুধু বারবার করে বলেন, ‘আমি এই (অবৈধ ভোটের) তালিকায় নিশ্চিতভাবে আছি।’ এ ছাড়া সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর চাইলে তিনি তা এড়িয়ে উইসকনসিন অঙ্গরাজ্যের রিপাবলিকান দলের চেয়ারম্যান অ্যান্ড্রু হিটসহ ভোট পুনঃগণনার জন্য ট্রাম্প শিবিরের তৈরি বিশেষ যোগাযোগ দলের সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দেন।

উইসকনসিনে ডোনাল্ড ট্রাম্প জো বাইডেনের কাছে ২০ হাজার ভোটের ব্যবধানে হেরেছেন। এর পরপরই তিনি অঙ্গরাজ্যটিতে ভোট পুনঃগণনার দাবি জানান। দুই প্রার্থীর মধ্যকার ভোটের ব্যবধান অনেক কম হওয়ায় অঙ্গরাজ্যটির নির্বাচন কর্তৃপক্ষ বিষয়টি আমলে নিয়ে ভোট পুনঃগণনা শুরু করে। এই গণনা শেষ হতে আরও কয়েক দিন লাগবে।

এদিকে এই সময়ের মধ্যেই এখনো পরাজয় স্বীকার না করা প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁর আনা ভোট জালিয়াতির অভিযোগ প্রমাণে উঠেপড়ে লেগেছেন। তাঁর হয়ে লড়া জিম ট্রোপিস এই প্রচেষ্টার অংশ হিসেবেই নিজের ভোটকেই জালিয়াতির প্রমাণ হিসেবে হাজির করে একটি বড়সংখ্যক ভোট বাতিলের দাবি জানান।

তবে জিম ট্রোপিসের এই পদক্ষেপের সমালোচনা করে এমন আচরণ বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন বাইডেন শিবিরের আইনজীবী ডায়ান ওয়েলশ। ট্রাম্প শিবিরের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এটি মামলার শুনানির কোনো পর্যায় নয়। এটি ভোট পুনঃগণনা।’

কিন্তু তার কথা আর শুনছে কই ট্রাম্প শিবির। ট্রাম্প শিবিরের আরেক প্রতিনিধি ও জিম ট্রোপিসের ভাই ক্রিস্ট ট্রোপিস আরেক ধাপ এগিয়ে ‘সব আগাম ভোট’ বাতিলের দাবি জানিয়ে বসে আছেন। একই সঙ্গে তিনি সংশ্লিষ্ট আবেদন খুঁজে পাওয়া না গেলে, সব অনুপস্থিতি ব্যালট, একেবারে অনির্দিষ্টকালের অন্তরীণ দাবি জানানো লোকেদের সব ভোটসহ বিপুলসংখ্যক ভোট বাতিলের দাবি জানিয়েছেন।

কিন্তু এসব আরজি খারিজ করে দিয়েছে সংশ্লিষ্ট নির্বাচন কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে বোর্ড অব ক্যানভাসিংয়ের চেয়ারপারসন টিম পোসনাস্কি ইউএসএটুডেকে বলেন, ‘নির্বাচনের নির্দেশিকায় থাকা কর্তব্যের আওতায় এটি পড়ে না। ফলে এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত দেওয়ার এখতিয়ার আমার নেই।’