নিউইয়র্ক ফায়ার সার্ভিসের অর্ধেকের বেশি সদস্য ভ্যাকসিন নেবেন না

177

নিউইয়র্ক ফায়ার সার্ভিসের অর্ধেকের বেশি সদস্য কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন গ্রহণ করবেন না। করোনার কারণে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর নগর হিসেবে বিবেচিত নিউইয়র্কের দুই হাজার অগ্নিনির্বাপন কর্মীর মধ্যে জরিপ পরিচালনা করা হয়। তাদের ইউনিয়নের প্রতিনিধি ৬ ডিসেম্বর জানিয়েছেন, তাদের বিভাগের ৫৫ শতাংশ সদস্যই জানিয়েছেন, তাঁরা এখনই ভ্যাকসিন গ্রহণ না করে অপেক্ষা করবেন।

ফাইজার ও মডার্নার তৈরি ভ্যাকসিন আসছে শিগগিরই। আগামী ১০ ডিসেম্বর ফাইজার ও বায়োএনটেকের টিকা মার্কিন সরকারের অনুমোদন পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অনুমোদন পাওয়ার পর যতটা সম্ভব দ্রুত যুক্তরাষ্ট্রের সর্বত্র এই টিকা পৌঁছে দেওয়া হবে। সবার আগে স্বাস্থ্যকর্মীসহ জরুরি কাজে ও সামনের সারিতে কাজ করা মানুষ ভ্যাকসিন গ্রহণের সুযোগ পাবে। অগ্নিনির্বাপন বিভাগের কর্মীরাও এমন অগ্রাধিকার তালিকায় রয়েছেন।

নিউইয়র্ক ফায়ার সার্ভিসের দুই শতাধিক কর্মী এখন করোনাভাইরাসের সংক্রমণের শিকার। ইউনিয়ন প্রতিনিধি অ্যান্ড্রু এন্সবরো বলেন, তাদের সদস্যদের ভ্যাকসিন গ্রহণের জন্য উৎসাহিত করা হচ্ছে। তবে ভ্যাকসিন গ্রহণ কারও জন্যই বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে না। অগ্নিনির্বাপন বিভাগের সদস্যদের মধ্যে কেউ ভ্যাকসিন গ্রহণ না করলে তাদের বাধ্য করা হবে না।

সংক্রমণের শিকার অগ্নিনির্বাপন বিভাগের সদস্যদের ফায়ার স্টেশনের বাইরে রাখা হচ্ছে। ভ্যাকসিন গ্রহণ না করলেও নিউইয়র্ক নগরের ফায়ার সার্ভিসের সেবা কার্যক্রম কোনোভাবেই ব্যাহত হবে না বলে অ্যান্ড্রু এন্সবরো জানান।

শীত পড়ার সঙ্গে সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে করোনার সংক্রমণ বাড়ছে। প্রতিদিন আড়াই থেকে তিন হাজার মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। নিউইয়র্কের পরিস্থিতিও দিন দিন আবার অবনতি হচ্ছে। ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত সংক্রমণ আরও নাজুক হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।