১০০ দিনে ১০০ মিলিয়ন মার্কিনিকে টিকা দেয়ার প্রত্যয় বাইডেনের

146

যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত জো বাইডেন ক্ষমতা গ্রহণের প্রথম ১০০ দিনে যুক্তরাষ্ট্রে ১০০ মিলিয়ন বা ১০ কোটি মানুষকে করোনার টিকা দেয়ার প্রত্যায় ঘোষণা করেছেন। তিনি বলেছেন, ক্ষমতা গ্রহণের প্রথম কয়েক মাসের মধ্যেই এই মহামারিকে খতম করা যাবে না। এক্ষেত্রে কি কৌশল নেবেন তিনি সে বিষয়ে সামান্য ব্যাখ্যা করেছেন। তবে বলেছেন, কোভিড-১৯-এর গতি পরিবর্তন করে দেবেন। আগামী ২০ শে জানুয়ারি শপথ গ্রহণের মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট হিসেবে তার যাত্রা শুরু করার কথা। এ উপলক্ষে তার স্বাস্থ্য বিষয়ক টিমের পরিচয় করিয়ে দিয়ে তিনি মার্কিনিদের কাছে ১০০ দিন মুখে মাস্ক পরার আহ্বান জানান। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। ওদিকে মঙ্গলবার ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকার একটি রিপোর্ট প্রকাশ হয়েছে।

সেই রিপোর্ট এই টিকা অনুমোদনে এবং মার্কিনিদের কাছে পৌঁছে যেতে সহায়তা করবে। ওই সময়ে হোয়াইট হাউসে করোনার টিকাদান বিষয়ক কর্মসূচি অপারেশন ওয়ার্প স্পিডের একটি সামিটে উপস্থিত ছিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। সেখানে তিনি টিকা অনুমোদন দেয়ার প্রত্যাশা বৃদ্ধি পাওয়ার প্রশংসা করেন। জন্স হপকিন্স ইউনিভার্সিটির হিসাব অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন কমপক্ষে এক কোটি ৫০ লাখ মানুষ। মারা গেছেন দুই লাখ ৮৫ হাজার। বিশ্বের অন্য যেকোনো দেশের তুলনায় এই সংখ্যা সর্বোচ্চ। এখনও সেখানে অনেক রাজ্যে করোনা সংক্রমণ পিক বা সর্বোচ্চ অবস্থানে রয়েছে। হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে।
এ অবস্থায় নিজের রাজ্য দেলাওয়ারে এক সংবাদ সম্মেলন করেন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত জো বাইডেন। তিনি তার স্বাস্থ্য বিষয়ক টিমের পরিচয় করিয়ে দেন। ক্যালিফোর্নিয়ার এটর্নি জেনারেল জাভিয়ের বেচারা’কে তিনি তার স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে মনোনয়ন দিয়েছেন। সেন্টার ফর ডিডিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশনের (সিডিসি) প্রধান হিসেবে বেছে নিয়েছেন রোচেলেওয়ালেনস্কিকে। এ সময় তিনি বলেন, আমার ক্ষমতার মেয়াদের প্রথম ১০০ দিনেই কোভিড-১৯ ভ্ইারাসকে খতম করে দেয়া সম্ভব হবে না। এমন প্রতিশ্রুতি আমি দিতে পারি না। এই ভাইরাসের বিস্তার ভয়াবহ আকারে ছড়িয়ে পড়তে দিতে পারি না। এ থেকে খুব দ্রুত আমরা মুক্তিও পাচ্ছি না। তিনি বলেন, প্রথম ১০০ দিনে আমরা এই রোগের গতি এবং মার্কিনিদের জীবনধারায় উন্নত পরিবর্তন আনতে পারবো। তবে এ প্রক্রিয়া হবে ধীর, যদি কংগ্রেস দ্বিপক্ষীয় সংলাপে কোনো সমাধান না দেয়, জরুরি তহবিল অনুমোদন না দেয়।