টিকা গ্রহণে আগ্রহী করতে বিশেষ উদ্যোগ

171

মার্কিন ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (এফডিএ) অনুমোদনের পর যুক্তরাষ্ট্রে গতকাল সোমবার থেকে ফাইজার-বায়োএনটেকের তৈরি করোনা টিকার প্রয়োগ শুরু হয়েছে। আজ মঙ্গলবার এর পরিসর বাড়ানো হয়েছে। কিন্তু তারপরও অনেকের মনেই এখনো এই টিকা নিয়ে সংশয় রয়ে গেছে। এ অবস্থায় এই সংশয়বাদী মানুষের সংশয় দূর করতে বিশেষ উদ্যোগ নিচ্ছে মার্কিন প্রশাসন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে তিন লাখের বেশি মানুষ মারা গেছে। অর্থনীতির অবস্থা ভয়াবহ। এ অবস্থায় করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণে আনতে হলে এর টিকা গ্রহণে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করা ছাড়া গত্যন্তর নেই। কিন্তু অনেক দ্রুত সময়ের মধ্যে এই টিকার জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন আসায় অনেকেই এটি গ্রহণ করতে চাইছেন না। এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে এমনিতেই কিছু মানুষ যেকোনো টিকা গ্রহণে বরাবরই অনীহা দেখিয়ে আসছে। প্রতি বছর ফ্লু টিকা দেওয়ার সময়ই বিষয়টি সামনে আসে। কিন্তু এই টিকা মোট জনগোষ্ঠীর ৭৫-৮০ শতাংশ মানুষ গ্রহণ না করলে মহামারি নিয়ন্ত্রণে আনা যাবে না বলে মত দিয়েছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। এ অবস্থায় টিকা গ্রহণে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে ভাবছে মার্কিন প্রশাসন।

রয়টার্সের তথ্যমতে, যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ রোগে ৩ লাখ ১ হাজার ৮৫ জন মারা গেছে। আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৬৫ লাখ ছাড়িয়েছে।

এ অবস্থায় এফডিএ ও সিডিসির কাছ থেকে জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন পাওয়ার পর গতকাল সোমবার থেকে যুক্তরাষ্ট্রে করোনা টিকা দেওয়া শুরু হয়। নির্ধারিত ৬০০টি স্থানের মধ্যে ১৪৫টিতে গতকালই টিকার সরবরাহ গেছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স। ফাইজারের তৈরি এই টিকার দুই ডোজ একজনকে তিন সপ্তাহের বিরতিতে নিতে হবে।

এদিকে মর্ডার্নার তৈরি টিকার অনুমোদনও চলতি সপ্তাহে হয়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। কিন্তু এত সব চেষ্টাকে ব্যর্থ করে দিতে পারে মার্কিনদের একাংশের ভেতরে টিকা নিয়ে তৈরি হওয়া অবিশ্বাস।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, শুরু থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের এক শ্রেণির মানুষ এই করোনা মহামারিকে ‘গুজব’ আখ্যা দিয়ে যাবতীয় স্বাস্থ্য সুরক্ষা নীতিকে অগ্রাহ্য করছে। টিকা গ্রহণের ক্ষেত্রেও এদের অনীহাই বেশি।

রয়টার্স-ইপসস পরিচালিত সাম্প্রতিক এক জরিপ দেখা যায়, জরিপে অংশগ্রহণকারীদের ৬১ শতাংশ টিকা গ্রহণে আগ্রহী। বাকিরা এ বিষয়ে আগ্রহী নয়।

এ অবস্থায় টিকা নিয়ে মানুষকে সচেতন করতে বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ জরুরি বলে মনে করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। এ বিষয়ে এমএসএনবিসি চ্যানেলে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কমিটি টু প্রোটেক্ট মেডিকেয়ারের পরিচালক ও মিশিগানের চিকিৎসক ড. রব ডেভিডসন বলেন, ‘জনস্বাস্থ্য খাতের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো যোগাযোগ। পরবর্তী ধাপে আমরা লোকেদের টিকা গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করতে পারব বলে আশাবাদী। এটা সত্যিই খুব গুরুত্বপূর্ণ।’