মার্কিন জনগণের জন্য আবারও নগদ অর্থ সহযোগিতা

168

যুক্তরাষ্ট্র সরকারের পক্ষ থেকে নাগরিকদের জন্য নতুন প্রণোদনা আইন পাস হচ্ছে। কোভিড-১৯ আক্রান্ত হওয়ার পর দ্বিতীয় দফা এ নাগরিক প্রণোদনায় প্রতিজন ৬০০ ডলার করে নগদ অর্থ পাবেন। স্বামী–স্ত্রী মিলে পাবেন ১ হাজার ২০০ ডলার। অপ্রাপ্ত বয়স্ক সন্তানদের জন্যও থাকছে আলাদা ৬০০ ডলার। এককালীন এ নগদ অর্থ ছাড়াও বেকার হয়ে পড়া কর্মজীবীরা পাবেন সপ্তাহে ৩০০ ডলার করে। এ ছাড়া ভাড়াটে ও বাড়ির মালিকদের জন্য সহযোগিতা ঘোষণা করা হয়েছে। ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের সচল রাখার জন্যও অর্থ সহযোগিতার সুযোগ রয়েছে নতুন প্রণোদনা প্রস্তাবে।

দীর্ঘ দর–কষাকষির পর কংগ্রেসের উভয় দল এ নিয়ে সমঝোতায় পৌঁছেছে। গতকাল রোববার সন্ধ্যার পর সিনেটে রিপাবলিকান দলের নেতা মিচ ম্যাককনেল কংগ্রেসে উভয় দলের এ সমঝোতার কথা জানান। তিনি বলেন, মহামারিতে বিপর্যস্ত আমেরিকার লোকজন এ সহযোগিতার জন্য দীর্ঘ অপেক্ষায় আছে। কঠিন এ সময়ে আমেরিকার মানুষ এ নাগরিক সহযোগিতায় স্বস্তি পাবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

ডেমোক্র্যাট নেতা স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি এবং সিনেটে ডেমোক্র্যাট দলের নেতা চার্লস শুমার এক যৌথ বক্তব্যে বলেছেন, ‘আমরা ভাইরাসকে পরাজিত করব এবং আমেরিকার জনগণের পকেটে অর্থ প্রদান করব।’

মোট ৯০ হাজার কোটি ডলারের প্রণোদনা প্যাকেজ নিয়ে আলোচনা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এখতিয়ারে গিয়ে ঠেকে। সিনেটর প্যাট টুমি জরুরি ঋণ দেওয়ার বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এখতিয়ারের পরিসর কমানোর প্রস্তাব উত্থাপন করেন। এ নিয়ে আলোচনার একপর্যায়ে সিনেটে সংখ্যালঘু দলের নেতা চাক শুমার ও পেনসিলভানিয়ার রিপাবলিকান সিনেটর এ–সম্পর্কিত একটি সমঝোতায় পৌঁছান। এখন দুই দলের নেতারা এই সমঝোতার আইনি ভাষা তৈরির কাজটি করছেন। কংগ্রেস ও সিনেটের বেশ কিছু পদ্ধতিগত প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে প্রস্তাবটি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে যাবে। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এতে স্বাক্ষর করবেন। সবই সমঝোতার অংশ হিসেবে দ্রুততার সঙ্গে আমেরিকার জনগণের কাছে অর্থ প্রেরণ করার সব প্রস্তুতি নিয়ে রাখা হয়েছে।

এ সপ্তাহেই আমেরিকার সবচেয়ে বড় উৎসব বড়দিনের ছুটি। এ ছুটির আগেই প্রণোদনা আইন পাস করে আইনপ্রনেতারা ঘরে ফিরছেন। ২৭ ডিসেম্বর থেকেই প্রণোদনার অর্থ ও সুবিধা জনগণের কাছে পৌঁছাতে শুরু করবে বলে মনে করা হচ্ছে।
নগদ অর্থের জন্য প্রথম প্রণোদনার মতোই নিয়ম রাখা হয়েছে। যাদের বেকার ভাতার মেয়াদ শেষ হয়ে আসছে, তাদের মেয়াদ বৃদ্ধি করা হবে। নিয়মিত বেকার ভাতার সঙ্গে অতিরিক্ত ৩০০ ডলার করে সপ্তাহে দেওয়া হবে। বর্ধিত ভাতার মেয়াদ ১১ সপ্তাহের জন্য দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

এবারের প্রণোদনা প্যাকেজে কোভিডের কারণে অর্থনৈতিক দৈন্যদশায় থাকা লোকজনের জন্য বাড়িভাড়ার অনুদান থাকছে। বাড়ির মালিকদের জন্যও সহযোগিতার খাত রাখা হয়েছে। এ খাতে ২৫ বিলিয়ন ডলার রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

স্কুল–কলেজে অনুদানসহ চাইল্ড কেয়ারের জন্য আলাদা অর্থ দেওয়া হবে। এ ছাড়া ফুড স্ট্যাম্পের (খাদ্য সহযোগিতা) জন্য ১০ বিলিয়ন ডলার, নাগরিকদের ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট–সংযোগের জন্য দেওয়া হচ্ছে সাত বিলিয়ন ডলার। এ ছাড়া করোনা ভ্যাকসিন সরবরাহ, স্বাস্থ্য খাতের জন্য আলাদা বরাদ্দ রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে রীতিমতো নাকাল দশায় আছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রথম দফায় দেওয়া প্রণোদনা প্যাকেজের অর্থ ফুরিয়ে আসছে। দ্বিতীয় প্যাকেজটি পাস না হলে খুব দ্রুতই তহবিল ফুরিয়ে আসছিল।

জনগণের চরম অর্থনৈতিক দৈন্যদশার এ সময়ে এমন দ্বিতীয় প্রণোদনা প্যাকেজ নিয়ে আলাপ চলছিল গত আগস্ট মাস থেকে। বেশ কয়েকবার কাছাকাছি পৌঁছেও রিপাবলিকানদের রক্ষণশীলতার কারণে সমঝোতা হচ্ছিল না।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নিজে বাহবা নেওয়ার জন্য নাগরিকদের উদার সহযোগিতা দেওয়ার কথা বারবার বলছিলেন। ডেমোক্র্যাট দল নগর ও রাজ্য সরকারের নানা সেবা খাতে ফেডারেল সযোগিতার বর্ধিত বরাদ্দ নেওয়ার চেষ্টা করছিল দ্বিতীয় দফা প্রণোদনা আইনের মাধ্যমে।

৯০ হাজার কোটি ডলারের এ প্রণোদনা প্যাকেজে ডেমোক্র্যাটদের সব প্রত্যাশা পূরণ না হলেও কাছাকাছি পৌঁছেছে বলে মনে করা হচ্ছে। নবনির্বাচিত ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ২০ জানুয়ারি শপথ গ্রহণ করবেন। তিনি আগেই আভাস দিয়েছেন, ক্ষমতা গ্রহণ করে নাগরিকদের জন্য আরও সহযোগিতার হাত প্রসারিত করবেন।