বিদায়ী ২০২০ সালে বাংলাদেশের রাজনৈতিক অঙ্গন ছিল উত্তাপহীন

150

বিদায়ী ২০২০ সালের বাংলাদেশের রাজনৈতিক অঙ্গন এবং এর কর্মকান্ড ছিল নিস্তরঙ্গ, উত্তাপহীন এবং ডিজিটাল মাধ্যম নির্ভর। রাজনৈতিক পরিস্থিতি কোনভাবেই মানুষকে স্পর্শ করেনি, করেনি প্রভাবিত।

বিদায়ী ২০২০ সালের বাংলাদেশের রাজনৈতিক অঙ্গন এবং এর কর্মকান্ড ছিল নিস্তরঙ্গ, উত্তাপহীন এবং ডিজিটাল মাধ্যম নির্ভর। রাজনৈতিক পরিস্থিতি কোনভাবেই মানুষকে স্পর্শ করেনি, করেনি প্রভাবিত।

করোনার মহামারীই ছিল মূলত: এর কারণ। এর মধ্যে অবশ্য কয়েকটি নির্বাচন হয়েছে ভোটারদের অতি নগন্য উপস্থিতির মধ্যে। আর বছরের শেষ দিকে এসে ৪২ জন বিশিষ্ট নাগরিকের নির্বাচন কমিশনের আর্থিক অনিয়ম তদন্তে সুপ্রীম জুডিশিয়াল কাউন্সিল গঠনের দাবি সংক্রান্ত বিষয়ে প্রেসিডেন্টের হস্তক্ষেপ কামনা করে দেয়া বিবৃতিসহ কয়েকটি বিষয়ে কিছুটা উত্তাপ লক্ষ্য করা গেছে।

ক্ষমতাসীন দলের মধ্যম ও নিচের দিকের কিছু নেতা এবং রাজনৈতিক প্রভাবশালী কিছু ব্যক্তির দুর্নীতির বিষয় উদঘাটন এবং সামনে চলে আসাও ছিল বছরের আলোচনার বিষয়। সব মিলিয়ে অন্যান্য বছরের তুলনায় বিদায়ী বছরের রাজনীতি ছিল অন্যরকম, ভিন্নমাত্রার। কেমন ছিল বিদায়ী বছরের রাজনীতি – সে সম্পর্কে বিশ্লেষণ করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক এবং নির্বাচন বিষয়ক বিশেষজ্ঞ ড. তোফায়েল আহমেদ।

বিশ্লেষকগণ বলছেন, বিদায়ী বছরটির রাজনীতিও করোনার প্রভাবমুক্ত ছিল না। সবমিলিয়ে বিদায়ী বছরের রাজনীতি ছিল নিরুত্তাপ এবং রাজনৈতিক কর্মকান্ডবিহীন স্থবিরতার একটি বছর।ঢাকা থেকে আমীর খসরু