তিনটি বিদেশি কোম্পানিকে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমতি দিচ্ছে বাংলাদেশ

130

করোনা ভাইরাসের টিকা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছাতে তিনটি প্রতিষ্ঠানকে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমতি দিচ্ছে বাংলাদেশ। স্বাস্থ্যসচিব আব্দুল মান্নান সংবাদমাধ্যমকে এই তথ্য জানিয়েছেন। প্রতিষ্ঠান তিনটির মধ্যে দুইটি চীন ও একটি ভারতের। ইতিপূর্বে চীনের একটি কোম্পানিকে ট্রায়ালের অনুমতি দেয়নি সরকার। বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড প্রথম পর্যায়ের ট্রায়ালের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত দুটি উৎস থেকে টিকা নিশ্চিত করেছে। ভারতের সিরাম ইন্সটিটিউট থেকে তিন কোটি ডোজ এবং কোভ্যাক্স সুবিধায় ছয় কোটি ৮০ লাখ ডোজ। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন, প্রত্যেক উপজেলায় সাত লাখ করে ভ্যাকসিন রাখার সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এজন্য গঠন করা হয়েছে সাড়ে সাত হাজার টিম। মন্ত্রী জানান, গুরুতর অসুস্থ এবং ১৮ বছরের কম বয়সীদের এই ভ্যাকসিন দেয়া হবে না। যেসব বিদেশি নাগরিক বাংলাদেশে অবস্থান করছেন তাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধম্যে টিকা দেয়া হবে। আগামীকাল থেকে যুক্তরাজ্য ফেরত যাত্রীদের ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে না। চার দিন কোয়ারেন্টিনে থাকলেই চলবে। স্বাস্থ্যদপ্তর থেকে এই সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে।

করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে বাংলাদেশে মত প্রকাশের স্বাধীনতা কেমন তা পর্যালোচনা করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। সংস্থাটির বার্ষিক প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনাকে অজুহাত হিসেবে ব্যবহার করে সরকার মুক্তমত প্রকাশের স্বাধীনতাকে খর্ব করেছে। এই সমালোচনা থেকে কেউই রেহাই পাচ্ছেন না। ১০০টি দেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে বাংলাদেশ প্রসঙ্গে সংস্থাটি বলেছে, নিপীড়নমূলক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অধীনে গ্রেপ্তার বেড়েছে। ফেসবুকে পোস্ট দেয়ার জন্য একটি শিশুকেও গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ভাইরাস থেকে সুরক্ষা দেয়ার জন্য জেলখানা থেকে ২৩ হাজার বন্দিকে মুক্তি দেয়া হলেও সরকারের সমালোচক বন্দিরা মুক্তি পাননি।

করোনার জিনোম সিকোয়েন্স নিয়ে কাজ করা চাইল্ড রিসার্স ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ড. সমীর সাহা বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, যুক্তরাজ্যে করোনার যে নতুন স্ট্রেইন পাওয়া গেছে তা এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে পাওয়া যায়নি। তবে সতর্ক থাকতে হবে, কারণ এই স্ট্রেইনগুলো এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় ঘুরে বেড়ায়। তিনি জানান, বাংলাদেশ থেকে একটি ভাইরাস অস্ট্রেলিয়ায় গেছে। তার ধারণা, চার্টার্ড বিমানে করেই এই ভাইরাসটি সেখানে পৌঁছেছে।

ওদিকে করোনায় আরও ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনাক্ত হয়েছেন ৮১৩ জন। করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। বাসাতেই তিনি চিকিৎসা নিচ্ছেন।