সেরাটা দিতে চায় ওরা

234

২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপের পরিকল্পনার অংশ হিসেবে বাংলাদেশের ওয়ানডে দলে প্রথমবার সুযোগ পেয়েছেন হাসান মাহমুদ, মেহেদী হাসান ও শরীফুল ইসলাম। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে হোম সিরিজে অভিষেকের আশায় থাকা তিন তরুণ জানিয়েছেন, একাদশে সুযোগ পেলে নিজের সেরাটা দিতে চেষ্টা করবেন।

হাসান মাহমুদ:

যেদিন থেকে খেলা শুরু করেছিলাম, সেদিন থেকেই জাতীয় দলে খেলার স্বপ্ন ছিল। এখন সুযোগ পেয়েছি, আলহামদুলিল্লাহ। আমি আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো। লক্ষ্য অবশ্যই ভালো করার। নিজের সেরাটা দেওয়ার। অবশ্যই ধারাবাহিকতা বজায় রাখাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনার যেই সুযোগটা আছে সেটা কাজে লাগানো খুবই দরকার। সেই জন্য সবার দোয়া লাগবে। অবশ্যই সিনিয়রদের অনুপ্রেরণা কাজ করে। দেশীয় ক্রিকেটারই হোক বা বিদেশী ক্রিকেটারই হোক। সবাইকে দেখে দেখেই এতটুকু আগানো। আর এখন তো অবশ্যই যেহেতু আছি, সিনিয়রদের দেখেই অনুপ্রাণিত হই।

মেহেদী হাসান:

অবশ্যই পরিশ্রম করে আসছি বাংলাদেশ দলে খেলার জন্য। প্রথমে তো আমার টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয়েছে, এখন ওয়ানডেতে সুযোগ এসেছে। আলহামদুলিল্লাহ। যদি বেস্ট ইলেভেনে সুযোগ হয়, নিজের সেরাটা দেয়ার অবশ্যই চেষ্টা থাকবে। যেহেতু আমি বোলিং করতে পারি, ব্যাটিং করতে পারি, যে জায়গায় যেখানে সুযোগ আসে চেষ্টা করবো কাজে লাগানোর। আমার তরফ থেকে তো শতভাগ চেষ্টাই থাকবে।

ওদের (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) পুরো শক্তির দল আসলেও সমস্যা ছিল না, যেহেতু আমরা মানসিকভাবে অনেক শক্ত আছি। খেলা কখনও ছোট করে দেখতে নেই, যে দলই হোক। গোল বলের খেলা যেহেতু, বড় টিম আর ছোট টিম নেই।

শরীফুল ইসলাম:

আলহামদুলিল্লাহ অনেক ভালো লাগছে খবরটা শোনার পরে। অনেক খুশি লাগছিল যে আমি প্রথমবারের মত জাতীয় দলের স্কোয়াডে আছি। ইনশাআল্লাহ জাতীয় দলের সেরা একাদশে যদি জায়গা পাই তাহলে সেরা পারফরম্যান্সটা দেওয়ার চেষ্টা করব। জায়গাটা ধরে রাখার চেষ্টা করব। যখন অনূর্ধ্ব-১৯ দলে খেলতাম বা যখন থেকে ক্রিকেট খেলা শুরু করেছি তখন থেকেই ভাবতাম যে সাকিব ভাই, মুশফিক ভাই, রিয়াদ ভাই, তামিম ভাই, মুস্তাফিজ ভাই ওদের সাথে যদি খেলতে পারি, থাকতে পারি। এটা স্বপ্ন ছিল। ইনশাআল্লাহ সেটা পূরণ হয়েছে।