৬ বছরের মধ্যে তাইওয়ান দখল করতে পারে চীন

91

আগামী ছয় বছরের মধ্যে তাইওয়ান দখল করতে পারে চীন। এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের কমান্ডার অ্যাডমিরাল ফিলিপ ডেভিডসন এই আশঙ্কা করছেন। স্বশাসিত ও গণতান্ত্রিক তাইওয়ান দখলে হুমকি দিয়ে আসছে চীন। বেইজিং দাবি করছে, এই দ্বীপটি তাদের মূল ভূখণ্ডের একটি অংশ। একদিন তারা এটি ফিরিয়ে নেবে। মঙ্গলবার অ্যাডমিরাল ফিলিপ ডেভিডসন বলেছেন, আমি উদ্বিগ্ন যে, আন্তর্জাতিক নিয়মের ভিত্তিতে আমাদের নেতৃস্থানীয় ভূমিকা এবং যুক্তরাষ্ট্রের প্রাধান্য খর্ব করতে তারা (চীন) উচ্চাকাঙ্ক্ষা ত্বরান্বিত করছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটে সামরিক বাহিনী সংক্রান্ত কমিটির শুনানিতে তিনি বলেছেন, স্পষ্টভাবেই তাইওয়ান তাদের সেই উচ্চাভিলাসের একটি অংশ। আমি মনে করি, তাদের এই হুমকি চলতি দশকে প্রকাশ পাবে, প্রকৃত অর্থে আগামী ছয় বছরের মধ্যে।

১৯৪৯ সালের গৃহযুদ্ধের শেষে চীন থেকে আলাদা হয় তাইওয়ান। এরপর থেকে দ্বীপটি প্রতিনিয়ত চীনের আক্রমণের হুমকিতে রয়েছে।

পৃথক-স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে তাইওয়ানকে যুক্তরাষ্ট্র স্বীকৃতি না দিলেও শীর্ষ পরাশক্তিধর দেশটি অনানুষ্ঠানিকভাবে এই দ্বীপের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মিত্র ও সামরিক সহায়তাকারী।

সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন চীনের সঙ্গে বাণিজ্য ও জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ে সংঘাত সৃষ্টি করে তাইওয়ানের সঙ্গে বন্ধুত্ব জোরদার করেছিল।

বর্তমান জো বাইডেনের প্রশাসনও তাইওয়ানকে সহযোগিতা চালিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর বলেছে, দ্বীপটির সঙ্গে তাদের সম্পর্ক ‘সুদৃঢ়’।

সূত্র: গার্ডিয়ান