ইসরায়েলে নেতানিয়াহু যুগের অবসান!

88

পশ্চিম তীরে ইসরায়েলের রাজনৈতিক মঞ্চে নানা নাটকীয়তা চলমান রয়েছে। সেখানে গত দুই বছরে চার দফা নির্বাচনের পরও কোনো নির্দিষ্ট সরকার ক্ষমতায় আসতে পারেনি। তবে এবার হয়তো পরিবর্তন আসতে যাচ্ছে। ১২ বছর পর প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম ইন্ডিপেন্ডেন্ট।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ইসরায়েলে রেকর্ড সময় ধরে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন নেতানিয়াহু। তবে তার এই দীর্ঘ সময়ের রাজত্ব শেষ হতে চলেছে। ইসরায়েলি বিরোধী নেতা সরকার গঠনে প্রয়োজনীয়সংখ্যক আসন নিশ্চিত করেছে বলে জানিয়েছে সেখানকার বিভিন্ন গণমাধ্যম।

গত মার্চের নির্বাচনেও কোন দল সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায়, সরকার গঠনের জন্য বিরোধীদলীয় নেতা ইয়ারি লিপিদকে ২৮ দিনের সময়সীমা বেধে দেওয়া হয়েছিল। আগামী বুধবার সরকার গঠনের সেই মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

ইসরায়েলের সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, বিরোধী নেতা লিপিদ সরকার গঠনে সক্ষম। তিনি একটি জোট গঠনের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছেন। উগ্র জাতীয়তাবাদী নেতা নাফতালি বেনেটের সঙ্গে চুক্তিও প্রায় সেরে ফেলেছেন। বেনেটের দল ইয়ামিনা পার্টির পার্লামেন্টে ছয় আসন আছে।

ইন্ডিপেন্ডেন্ট জানায়, ইসরায়েলের মধ্যপন্থী দল ইয়েশ আতিদ পার্টির নেতা লাপিদের সঙ্গে জোট বাঁধছেন কি বাঁধছেন না, সে বিষয়ে খুব শিগগিরই ঘোষণা দিতে যাচ্ছেন ৪৯ বছর বয়সী বেনেট। যদি তাই হয় তাহলে নেতানিয়াহু সরকারের পতন ঘটবে।

গত ১২ বছর ধরে ইসরায়েলে ক্ষমতায় রয়েছেন নেতানিয়াহু। গত মার্চের নির্বাচনের পর ক্ষমতাসীন নেতানিয়াহুর লিকুদ পার্টি প্রয়োজনীয় আসন জয় না পেলেও তাকে সরকার গঠনের সুযোগ দেওয়া হয়। তবে তিনি ব্যর্থ হন। এরপর সরকার গঠনের সুযোগ পান লিপিদ।