ক্ষমতায় থাকতে মরিয়া নেতানিয়াহু

73

ক্ষমতায় টিকে থাকতে আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছেন ইসরায়েলের অন্তর্বর্তীকালীন প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু। তিনি জোট নেতাদের কড়া সমালোচনা করার পর আইনি চ্যালেঞ্জেও গিয়েছেন। যদিও সেই আবেদন নাকচ হয়ে গেছে। আজ বুধবারের মধ্যে বিরোধী জোটকে নতুন সরকার গঠন করতে হবে। খবর আলজাজিরার।

নেতানিয়াহুর সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী নাফতালি বেনেট রবিবার ঘোষণা করেন যে, তিনি জায়ের ল্যাপিডের ঐকমত্যের সরকারে যোগ দিচ্ছেন। আজ বুধবার মধ্যরাতের মধ্যেই প্রেসিডেন্ট রিউভেন রিভলিনের কাছে সরকারের গঠনের বিস্তারিত জানাতে হবে। গত ২৩ মার্চ নেতানিয়াহু সরকার গঠনে ব্যর্থ হওয়ায় ল্যাপিডকে সরকার গঠনের আমন্ত্রণ জানান প্রেসিডেন্ট রিভলিন। সরকার গঠন নিয়ে বিরোধী নেতারা আলোচনা চালাচ্ছেন বলে সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছে।

এদিকে নেতানিয়াহুর রক্ষণশীল লিকুদ পার্টি প্রেসিডেন্সি এবং পার্লামেন্টের আইনি কাউন্সিলের কাছে চিঠি দিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বেনেটকে প্রধানমন্ত্রীর পদ ছেড়ে দেওয়ার কোনো আইনি অধিকার ল্যাপিডের নেই। কিন্তু প্রেসিডেন্ট রিভলিনের অফিস এই যুক্তি নাকচ করে দিয়েছে।

জবাবে বলা হয়েছে, ল্যাপিড বিকল্প প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন। বেনেটের পর তিনিই হবেন প্রধানমন্ত্রী। লিকুদ পার্টি প্রেসিডেন্টের কাছে দাবি জানিয়েছে, ল্যাপিডের জোট যেন সরকার গঠন নিয়ে বিস্তারিত তথ্য দেয়। প্রেসিডেন্টের অফিস লিকুদ পার্টির এই আবেদন গ্রহণ করেছে। নেতানিয়াহু এর আগে জোট ঠেকাতে বেনেটের কড়া সমালোচনা করেছিলেন। বেনেট জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করেছেন বলেও মন্তব্য করেছিলেন।