রাশিয়া থেকে দ্রুত ৫০ লাখ টিকা আনার প্রস্তুতি

76

স্থবির টিকা কার্যক্রমে গতি আনতে রাশিয়া থেকে দ্রুত ৫ মিলিয়ন (৫০ লাখ) টিকা (স্পুটনিক ভি) আমদানিতে কাজ করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এমনটাই জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন। রোববার রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার আই ইগ্নটভের বিদায়ী সাক্ষাৎকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশের ওই প্রস্তুতির কথা জানান। রাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, মন্ত্রী মোমেন রাষ্ট্রদূতকে বলেছেন, অনুমোদন পেলে বাংলাদেশের কয়েকটি কোম্পানি রাশিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে টিকা উৎপাদন করতে আগ্রহী। তিনি রাশিয়া থেকে দ্রুত করোনার টিকা পেতে বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সহযোগিতাও কামনা করেন।

সেগুনবাগিচার বিজ্ঞপ্তি মতে, রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকে মন্ত্রী রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ কাজের গতি এবং মানে সন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি কর্মরত রাশিয়ার বিশেষজ্ঞ এবং শ্রমিকদের কাজের ভূয়সী প্রশংসা করেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রাশিয়া বাংলাদেশের পরীক্ষিত বন্ধু।
তিনি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় রাশিয়ার সহযোগিতার কথা কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করেন এবং সে সময়ের সহযোগিতার জন্য রাশিয়ার সরকার এবং জনগণকে ধন্যবাদ জানান।

ড. মোমেন বাংলাদেশের উন্নয়নে রাশিয়ার অবদান এবং বিভিন্ন মেগা প্রজেক্টে রাশিয়ার উন্নয়ন সহযোগিতার কথা উল্লেখ করে রাশিয়া সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশে দায়িত্ব পালনকালে সহযোগিতার জন্য পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। মন্ত্রীও রাশিয়ার কাছ থেকে পাওয়া সহযোগিতার জন্য বিদায়ী রাষ্ট্রদূতকে ধন্যবাদ জানান। রাষ্ট্রদূত আগামী ৮ই জুন তার বাংলাদেশ মিশনের সফল সমাপ্তি টানতে যাচ্ছেন। ওই দিনই তিনি মস্কোর উদ্দেশে ঢাকা ছেড়ে যাবেন।