ভবিষ্যত নিয়ে আফগানদের নিজেদের সিদ্ধান্ত নিতে হবে: বাইডেন

40

আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির সঙ্গে প্রথম মুখোমুখি বৈঠক করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনী প্রত্যাহার অব্যাহত রাখার মাঝেই গতকাল শুক্রবার (২৫ জুন) হোয়াইট হাউসে দুই নেতা বৈঠকটি করেছেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

সেখানে বাইডেন বলেন, ‘ভবিষ্যতের সকল সিদ্ধান্ত আফগানদের নিজেদের নিতে হবে। সেখান থেকে আমাদের সেনা প্রত্যাহার করান হলেও আফগানিস্তানের প্রতি ওয়াশিংটনের সহযোগিতা এখানেই শেষ হচ্ছে না।’

আশরাফ গনিকে উদ্দেশ্য করে তিনি আরও বলেন, ‘দেশটিতে সেনা উপস্থিতি না রেখেও যুক্তরাষ্ট্র বাইরে থেকেই আফগানিস্তানের সেনাবাহিনীকে সহায়তা করে যাবে। পাশাপাশি অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সহায়তাও অব্যাহত রাখবে। আমরা আপনার সাথেই আছি। এটি মূল্যবোধের বিষয়। আফগানিস্তানকে রক্ষা করতে গত দুই দশক ধরে যুক্তরাষ্ট্র যে কাজ করেছে, তাতে তিনি কৃতজ্ঞ। তবে এখন দেশটি তালেবানের বিরুদ্ধে সরাসরি যুদ্ধের মুখে রয়েছে।’

বৈঠকে আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘এটি মূল্যবোধের বিষয়, একটি ব্যতিক্রমী ব্যবস্থা বা অন্তর্ভুক্তিমূলক ব্যবস্থার মূল্যবোধ। আমরা ঐক্য, সংহতি, ও ত্যাগের বোধের প্রতি দৃঢ় প্রতিজ্ঞ এবং আমরা কিছুতেই ছাড় দেব না।’

এর আগে শুক্রবার দিনের শুরুতে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিনের সঙ্গে পেন্টাগনে বৈঠক করেছেন আশরাফ গনি। সেখানে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা বিশ্লেষণকে উদ্ধৃত করে সেনা প্রত্যাহারের ৬ মাসের মধ্যেই তালেবানের হাতে তার সরকারের পতন হওয়ার সম্ভাবনা আছে বলে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আফগান প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আগেও এ ধরনের অনেক ভবিষ্যৎবাণী ছিল এবং সেগুলো মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে।’

আফগানিস্তান থেকে সৈন্য সরাতে শুরু করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র-সহ সামরিক জোট ন্যাটো বাহিনী। বাইডেন জানিয়েছেন, চলতি বছরের ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দেশটি থেকে সকল বিদেশী সেনা সরিয়ে নেওয়া হবে। ২০২০ সালে তালেবানের সঙ্গে স্বাক্ষরিত চুক্তি মেনেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে ওয়াশিংটন।