কান্দাহারে ‘৯০০ মানুষ’ হত্যা করেছে তালেবান

100

আফগানিস্তানের যুদ্ধ পরিস্থিতির তীব্র অবনতি হয়েছে। তালেবান এবং সরকারি বাহিনী লড়ছে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে।এর মধ্যে কান্দাহার প্রদেশের অবস্থা অত্যন্ত নাজুক। সেখানে তালেবানের চালানো বর্বরতার তীব্র সমালোচনা করেন কান্দাহার প্রদেশ পুলিশের সাবেক প্রধান এবং হাইকাউন্সিল অব দ্য ন্যাশনাল রিকনসিলিয়েশনের (এইচসিএনআর) সদস্য তাদিন খান। তার অভিযোগ— তালেবান কান্দাহারের ৮০০ থেকে ৯০০ মানুষ হত্যা করেছে।

বুধবার এক বিবৃতিতে তাদিন খান এ দাবি করেন। আফগানিস্তানের গণমাধ্যম টোলো নিউজ এ তথ্য জানায়।

কান্দাহার প্রদেশ পুলিশের সাবেক প্রধানের অভিযোগ, ‘তালেবান মানবাধিকারে বিশ্বাস করে না।’

এ অভিযোগ করেই ক্ষান্ত হননি তাদিন। তিনি বলেন, তালেবান যোদ্ধারা কান্দাহারে গত দেড় মাসে অন্তত ৮০০ থেকে ৯০০ মানুষ হত্যা করেছে। তালেবান এসব মানুষকে ঘর থেকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে গেছে। এ বর্বরতার ঘটনা ঘটেছে স্পিন বুলদাকে জেলায়।

এদিকে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ) এক বিবৃতিতে জানায়, গজনি, কান্দাহার এবং আফগানিস্তানের অন্যান্য প্রদেশে সরকারের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা থাকার অভিযোগে তালেবানের হাতে আটক সেনা, পুলিশ ও বেসামরিক বহু নাগরিককে হত্যা করা হয়েছে।

এইচআরডব্লিউর এশিয়া অঞ্চলের সহযোগী পরিচালক প্যাট্রিসিয়া গোসম্যান বলেন, আটক অবস্থায় বেসামরিক লোক বা যোদ্ধা যে কাউকে হত্যা করা জেনেভা কনভেশনের গুরুতর লঙ্ঘন এবং যুদ্ধাপরাধ।

যদিও এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে তালেবান।

দীর্ঘ ২০ বছর পর আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার করছে যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্ররা। এর মধ্যে দেশের প্রায় অর্ধেকেরও বেশি জেলার দখল নিয়েছে তালেবান। সশস্ত্র গোষ্ঠীটির এ অগ্রযাত্রা রুখতে হিমশিম খাচ্ছে আফগান সরকার।