মাজার-ই-শরিফ সফরে ঘানি, ঠেকাতে চান তালেবানকে

64

আফগানিস্তানের আটটি প্রদেশের রাজধানীর দখল নিয়েছে তালেবান। এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন প্রদেশে চলছে তীব্র লড়াই। এবার উত্তরাঞ্চলের বলখ প্রদেশের রাজধানী ও চতুর্থ বৃহত্তম শহর মাজার-ই-শরিফের দিকে নজর দিয়েছে সশস্ত্র গোষ্ঠটির যোদ্ধারা।

শহরটির দখল এখন সময়ের ব্যাপার বলে মনে করা হচ্ছে। সে ক্ষেত্রে পুরো উত্তরাঞ্চলেই আফগান সরকারের পতন হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশ্লেষকরা।

এ অবনতিশীল নিরাপত্তা পরিস্থিতির মধ্যে মাজার-ই-শরিফ সফরে গেলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি। লক্ষ্য তালেবানের অগ্রযাত্রা ঠেকানো।

বুধবার সকালে তিনি মাজার-ই-শরিফ পৌঁছান। আফগানিস্তানের গণমাধ্যম টোলো নিউজ এ তথ্য জানায়।

খবরে বলা হয়, উত্তরাঞ্চলের প্রদেশগুলোর চ্যালেঞ্জিং নিরাপত্তা পরিস্থিতির মধ্যে বলখ প্রদেশের রাজধানী ও চতুর্থ বৃহত্তম শহর মাজার-ই-শরিফ সফরে এলেন প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি।

প্রেসিডেন্টের সঙ্গে রয়েছেন তার নিরাপত্তা এবং রাজনৈতিকবিষয়ক উপদেষ্টা মোহাম্মদ মোহাক্কিক এবং মুজাহিদিনের সাবেক কমান্ডার জুমা খান হামদর্দ।

এর আগে মঙ্গলবার রাতে সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট মার্শাল আবদুল রাশিদ দস্তুমও মাজার-ই-শরিফ সফর করেন।

কর্মকর্তারা জানান, মাজার-ই-শরিফে মার্শাল আবদুল রাশিদ দস্তুম, বলখ প্রদেশের সাবেক গভর্নর আত্তা মুহাম্মদ নূর এবং প্রদেশের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

এ দিকে গত পাঁচ দিনে আফগানিস্তানের আটটি প্রদেশের রাজধানীর দখল নিয়েছে তালেবান।

দীর্ঘ ২০ বছর পর আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। আগস্টেই প্রত্যাহার প্রক্রিয়া শেষ করবে দেশটি। এর মধ্যেই তালেবান দেশের প্রায় অর্ধেকের বেশি জেলার দখল নিয়ে নিয়েছে। দেশের অধিকাংশ অঞ্চলেই চলছে সংঘাত।