মেসি মেসি’ স্লোগানে মুখর স্টেডিয়াম

53

ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে স্ট্রাসবার্গের বিপক্ষে দুর্দান্ত খেলল প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)

এ ম্যাচে পিএসজির নতুন তারকা ফুটবলার লিওনেল মেসির অভিষেক ঘটবে কিনা তা নিয়ে ফুটবলপ্রেমীদের কৌতূহলের শেষ ছিল না।

তবে ম্যাচের আগের দিন পিএসজি কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দেয়, শনিবার মাঠে মেসিকে দেখা যাবে কিন্তু তিনি খেলবেন না। স্বাগত জানানো হবে লিওনেল মেসিকে। আর এতেই যেন খুশি মেসির ইতালিয় সমর্থকরা। গ্যালারিতে তিল ধারণের ঠাঁই ছিল না।

মাঠে নেমে গ্যালারিভরা দর্শকদের হাত নেড়ে অভিনন্দন গ্রহণ করেন মেসি। এসময় ‘মেসি’ ‘মেসি’ স্লোগানে মুখর হয়ে ওঠে গোটা স্টেডিয়াম। মেসিও হাত নাড়িয়ে অভিনন্দনের জবাব দেন। হাতে মাইক নিয়ে প্যারিসে যোগদান নিয়ে নিজের অনুভূতির কথা জানান।

স্বাগত অনুষ্ঠানে অবশ্য মেসি একাই ছিলেন না; তার সঙ্গে একে একে মাঠে আসেন পিএসজির আরও চার নতুন খেলোয়াড়- আশরাফ হাকিমি, সার্জিও রামোস, জর্জো ভাইনালডাম ও জিয়ানলুইজি দোন্নারুম্মা।

মেসিকে স্বাগত জানানোর ভিডিওটি দেখুন –

 

 

এরপর মেসিও দর্শক হয়ে যান। আর দর্শক মেসির সামনেই দুর্দান্ত খেললেন ইকার্দি- এমবাপ্পেরা।

এ দুই তারকার নৈপুণ্যে স্ট্রাসবার্গকে ৪-২ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে পিএসজি। ম্যাচের প্রথমার্ধেই পিএসজি দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে অনেকটাই পিছিয়ে পড়ে স্ট্রাসবার্গ। পিএসজির কাছে গো-হারা হারবে বলে ধারণা করা হচ্ছিল। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে দুর্দান্ত খেলে লড়াইয়ে ফেরে স্ট্রাসবার্গ। ম্যাচকে উপভোগ্য করে তুলে।

প্রথমার্ধে ৩-০ গোলে এগিয়ে যায় পিএসজি। ম্যাচ শুরুর মাত্র ৩ মিনিটের সময় জালের দেখা পায় পিএসজি। ডিফেন্ডার দিয়ালোর দূরপাল্লার ক্রসে ডি-বক্সে বল পান আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড ইকার্দি। স্ট্রাসবার্গের জালে জড়িয়ে দেন তিনি।

২৫ মিনিটের সময় ব্যবধান দ্বিগুণ করেন পিএসজির তরুণ তারকা এমবাপ্পে। তার নেওয়া জোরালো শট স্ট্রাসবার্গের ফরোয়ার্ড লুডোভিক আজকের মাথায় লেগে জালে জড়িয়ে যায়।

ওই গোলের মাত্র ২ মিনিট পর স্কোরশিটে নাম লেখান পিএসজির জার্মান মিডফিল্ডার হুলিয়ান ড্রাক্সলার। অবশ্য গোলটি পাওয়ার কথা ছিল এমবাপ্পের। দারুণ ক্ষিপ্রতায় বল নিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন এমবাপ্পে। গোলমুখে নেওয়া তার শট প্রতিপক্ষের গায়ে লেগে চলে যায় ড্রাক্সলারের পায়ে। সুযোগ হাতছাড়া করেননি ড্রাক্সলার।

৩-০ স্কোরলাইনের বিরতিতে যায় দুই দল। দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে দারুণ খেলে স্ট্রাসবার্গ। ম্যাচের ৫৩ মিনিটে প্রথম গোলটি শোধ করেন কেভিন গ্যামেইরো। ৬৪ মিনিটে দারুণ নৈপুণ্য দেখান লুডোভিক আজক।

স্কোরলাইন তখন ৩-২। জমজমাট খেলা আরো জমে ওঠে। গ্যালারির দর্শকরা অপেক্ষায় থাকে, স্ট্রাসবার্গের সমতাসূচক গোলটির জন্য। কিন্তু তা আর হয়ে উঠেনি। উল্টো ৮৬ মিনিটে পাওলো সারাভিয়ার গোলে হালি পূরণ করে পিএসজি।