হারিকেন হেনরি: যুক্তরাষ্ট্রের কিছু এলাকায় জরুরি অবস্থা

28

যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের ব্যাপক এলাকাজুড়ে প্রবল ঘূর্ণিঝড়, বৃষ্টিপাত ও আকস্মিক বন্যার আশঙ্কা করা হচ্ছে। এ অবস্থায় নিউইয়র্ক ও কানেটিকাটে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে।

নিউইয়র্ক, নিউজার্সি ও কানেটিকাট অঙ্গরাজ্যের প্রায় সাড়ে তিন লাখ লোককে সতর্ক আশ্রয়ে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

‘হেনরি’ নামের হারিকেন ও বৃষ্টির পূর্বাভাস গত শুক্রবার থেকে প্রচার করা হয়। গতকাল শনিবার বিকেল থেকে সমুদ্র উপকূলীয় এলাকায় ভারী বৃষ্টি শুরু হয়। বৃষ্টিতে বিভিন্ন সড়ক-মহাসড়কে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় সময় শনিবার রাত ১২টায় নিউইয়র্কের সর্বত্র ব্যাপক বৃষ্টিপাত শুরু হয়। বৃষ্টিপাতের কারণে পূর্ব-উত্তরের এলাকায় সড়ক-মহাসড়ক বন্ধ হয়ে গেছে। নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ড এলাকায় ‘হেনরি’ সরাসরি আঘাত হানতে পারে বলে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় সময় রোববার দিনভর বৃষ্টি থাকতে পারে। বৃষ্টির সঙ্গে কোথাও কোথাও দমকা হাওয়া ঘণ্টায় ১০০ মাইল পর্যন্ত পৌঁছতে পারে। ইতিমধ্যে নিউইয়র্কের সড়ক-মহাসড়ক যান চলাচলের জন্য বিপৎসংকুল হয়ে উঠেছে।

নিউইয়র্ক ট্রাফিক ইউনিয়নের নেতা বাংলাদেশি সৈয়দ উতবা স্থানীয় সময় শনিবার মধ্যরাতে জানান, টেপেনজি ব্রিজ এলাকা থেকে গাড়ি চালিয়ে আধঘণ্টার দূরত্ব অতিক্রম করতে তাঁর সাড়ে চার ঘণ্টা লেগেছে। সড়কপথে দুর্ঘটনা ঘটছে। লোকজন নিরাপদে বাড়ি পৌঁছার জন্য বিপৎসংকুল পথে গাড়ি চালাচ্ছে।

নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের উত্তর-পূর্বের বেশ কিছু এলাকায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে জনগণকে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বারবার আহ্বান জানানো হচ্ছে।

অঙ্গরাজ্যের গভর্নর সম্ভাব্য সংকট মোকাবিলায় ৫০০ জন ন্যাশনাল গার্ড সদস্য মোতায়েন করেছেন।

ব্যাপক বৃষ্টিতে সড়ক প্লাবিত হওয়া, ঘরবাড়ি ধসে পড়াসহ বিদ্যুৎ–সংযোগ বিচ্ছিন্ন হতে পারে বলে লোকজনকে সতর্ক করে দেওয়া হচ্ছে।

নিউজার্সির উপকূলীয় এলাকাসহ কানেটিকাট অঙ্গরাজ্যের ব্যাপক এলাকাজুড়ে একই সতর্কাবস্থা বিরাজ করছে।

কানেটিকাট অঙ্গরাজ্য গভর্নর জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে জনগণকে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।

নিউইয়র্কের ম্যানহাটনে বাংলাদেশি উবার চালক আবদুর রহমান গতকাল রাতে জানান, এলাকার সড়কপথ ফাঁকা হয়ে গেছে। অঝর ধারায় বৃষ্টির কারণে সড়কপথে পানি জমে গেছে। এমন অবস্থা আজ রাত পর্যন্ত চললে পরিস্থিতি নাজুক হয়ে উঠতে পারে।