পাঞ্জশিরে গোলাগুলি, ৮ তালেবান যোদ্ধা নিহত

21

কাবুলের উত্তরে পাঞ্জশির উপত্যকায় প্রধান বিরোধী গ্রুপের হামলায় তালেবানের ৮ সদস্য নিহত হয়েছেন। সোমবার রাতে এ সংঘর্ষ হয় বলে বিরোধী গ্রুপ দাবি করেছে। তবে তাৎক্ষণিক তালেবানের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

জাতীয় প্রতিরোধ বাহিনীর (এনআরএফ) মুখপাত্র ফাহিম দাস্তির বরাত দিয়ে মঙ্গলবার এ খবর জানায় তুর্কি সংবাদ মাধ্যম ডেইলি সাবাহ। এনআরএফ বাহিনী স্থানীয় নেতা আহমাদ মাসুদের অনুসারী বলে জানা গেছে।

সম্প্রতি কাবুল দখলে নিয়েছে তালেবান। তবে দেশটির একমাত্র প্রদেশ পাঞ্জশির বিরোধীদের দখলে রয়েছে। সেখানে তালেবানের সঙ্গে বিরোধীদের সংঘর্ষ চলছে। এ ছাড়া পার্শ্ববর্তী প্রদেশ বাগলানেও তালেবানের সঙ্গে স্থানীয় বিরোধীদের সংঘর্ষ চলছে।

এনআরএফ মুখপাত্র জানান, উপত্যকার পশ্চিম দিক দিয়ে প্রবেশে চেষ্টার সময় তালেবান এনআরএফের লক্ষ্যবস্তুর ওপর হামলা চালায়। এ হামলা প্রতিরোধের সময় তালেবানের আট সদস্য নিহত ও একই সংখ্যক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। তবে এনআরএফের দুই সদস্য আহত হয়েছেন বলেও দাবি করেন তালেবান বিরোধী এ নেতা।

এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক তালেবান মুখপাত্রের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

সাবেক সোভিয়েত বিরোধী কমান্ডার আহমাদ শাহ মাসুদের সন্তান আহমাদ মাসুদ। এই উপত্যকাটিতে আহমাদ মাসুদের নিজস্ব কর্তৃত্ব রয়েছে। এ ছাড়া পাহাড়ি এ প্রদেশটিতে মাসুদ বাহিনীর কয়েক হাজার শসস্ত্র যোদ্ধা রয়েছে। এর মধ্যে তাদের নিজস্ব সেনাবাহিনী ও বিশেষ বাহিনী রয়েছে।

এর আগে মাসুদ বাহিনী তালেবানের সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি আছে বলে জানিয়েছেন, তবে পাঞ্জশির প্রদেশ এবং উপত্যকা আক্রান্ত হলে সর্বশক্তি দিয়ে তা প্রতিহত করবেন বলেও ঘোষণা দেন।