হার দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু বাংলাদেশের

41

ম্যাচের আগের দিন স্কটল্যান্ডের কোচ জানিয়ে দিলেন বাংলাদেশকে তারা পাপুয়া নিউগিনি আর ওমানের কাতারেই ভাবেন। যদিও বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ মুখে সেই কথার জবাব দিলেন না। হয়তো মাঠেই বুঝাতে চেয়েছিলেন স্কটিশদের। কিন্তু না। বল হাতে দারুণ শুরুর পর খেই হারালো দল। ৫৩ রানে ছয় উইকেট পতনের পরও ১৪০ রানের লড়াকু পুজি পায় স্কটল্যান্ড। পরে টাইগাররা দেখায় অপরিণত ব্যাটিং। হার দিয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করলো বাংলাদেশ।

রোববার মাসকাটে স্কটল্যান্ডের কাছে ৬ রানে হার দেখে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের দল। বাংলাদেশের ইনিংস থামে ১৩৪/৭-এ।
এর আগে বল হাতে শুরুর দাপট ধরে রাখতে ব্যর্থ টাইগাররা। ১৪০/৯ সংগ্রহ নিয়ে ইনিংস শেষ করে স্কটল্যান্ড। দলীয় ৫৩ রানে স্কটল্যান্ডের ষষ্ঠ উইকেটের পতন হয়। তবে পরে ২৮ বলে ৪৫ রানের ইনিংস খেলে স্কটল্যান্ডকে লড়াইয়ের পুঁজি এনে দেন ৭ নম্বর ব্যাটার ক্রিস গ্রিভস। শেষ ৬ ওভারে ৬৩ রান জমা পড়ে স্কটল্যান্ডের স্কোর বোর্ডে। বাংলাদেশের বল হাতে চার ওভারের স্পেলে মাত্র ১৯ রানে তিন উইকেট নেন অফস্পিনার শেখ মেহেদী হাসান। ৪ ওভারে ১৭ রানে দুই উইকেট নেন বাঁ-হাতি স্পিনার সাকিব আল হাসান। বাঁহাতি পেসার মোস্তাফিজুর রহমান নেন ৩২ রানে দুই উইকেট।
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ওমানের আল আমেরাত ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ে নামে বাংলাদেশ। ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই প্রথম সাফল্যের দেখা পায় বাংলাদেশ। ব্যক্তিগত প্রথম ওভারের চতুর্থ বলে মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনের ইয়র্কার ডেলিভারি ঠেকাতে পারেননি স্কটল্যান্ড অধিনায়ক কাইল কোয়েটজার (৭ বলে ০)। পাওয়ার প্লে’তে ১ উইকেটে ৩৯ রান করে স্কটিশরা। ইনিংসের সপ্তম ওভারে প্রথমবার আক্রমণে আসেন অফস্পিনিং অলরাউন্ডার শেখ মেহেদি হাসান। এসেই জোড়া শিকার তার। এলবিডব্লিউয়ের শিকার হয়ে ফেরেন ম্যাথু ক্রস (১৭ বলে ১১ রান)। ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা জর্জ মুনসে ফেরেন বোল্ড হয়ে (২৩ বলে ২৯ রান)। উইকেটের দেখা পেয়েছেন সাকিব আল হাসানও। সাকিবের বলে আফিফ হোসেনের দারুণ ক্যাচে পরিণত হন রিচি বেরিংটন (৫ বলে ২ রান)। পরের ওভারে ব্যক্তিগত তৃতীয় উইকেটের দেখা পান মেহেদি। কলাম ম্যাকলিওড ফেরেন বোল্ড হয়ে (১৪ বলে ৫ রান)
এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ১২ ওভারে স্কটল্যান্ডের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৫৫ রান।
বাংলাদেশ একাদশ:
লিটন কুমার দাস, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহীম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), আফিফ হোসেন, নুরুল হাসান সোহান (উইকেটরক্ষক), শেখ মেহেদি হাসান, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান ও তাসকিন আহমেদ।